স্থপতি মইনুলের মৃত্যুতে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের শোক

জাতীয় স্মৃতিসৌধের স্থপতি ও দেশের বিশিষ্ট নকশাবিদ মইনুল হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গণমাধ্যমে পাঠানো সোমবার এক শোকবাণীতে খালেদা জিয়া বলেন, দেশের বিশিষ্ট নকশাবিদ মইনুল হোসেনের মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত ও মর্মাহত।

তিনি বলেন, স্থপতি হিসেবে তিনি কেবল দেশের বিভিন্ন সুরম্য ইমারতের নকশাই তৈরি করেননি বরং আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী বীর শহীদের স্মারক জাতীয় সৃতিসৌধের নকশা তৈরি করে জাতীয় ইতিহাসে একজন বরেণ্য সন্তান হিসেবে বিশেষ মর্যাদায় অভিষিক্ত হয়েছেন। তিনি আমাদের জাতীয় গৌরব।

খালেদা জিয়া বলেন, স্থপতি মইনুলের এই অমর কীর্তি একদিকে যেমন স্থাপত্যের অনন্যতায় মানুষের মনে চিরজাগরুক হয়ে থাকবে। অন্যদিকে আমাদের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে দৈশিক চেতনায় উদীপ্ত করতে প্রেরণা জোগাবে। দেশের এই কীর্তিমান মানুষটির মৃত্যুতে আমাদের মেধা, মনন, সৌকর্য এবং উৎকর্ষতার অগ্রগতি কিছুটা বাধাপ্রাপ্ত হল।

বিএনপি চেয়ারপারসন মরহুম মইনুল হোসেনের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকার্ত পরিবারবর্গ, আত্মীয়স্বজন, গুণগ্রাহী ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

অপর এক শোকবাণীতে জাতীয় স্মৃতিসৌধের স্থপতি মইনুল হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমান। তিনি মরহুমকে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান আখ্যায়িত করে তার কীর্তি দেশ চিরদিন মনে রাখবে বলেও মন্তব্য করেন। তারেক রহমান মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোকার্ত পরিবারের প্রতিও সমবেদনা জানান।

আরেক এক শোকবাণীতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মরহুম মইনুল হোসেনকে স্থাপত্য জগতের এক অনন্য মেধাসম্পন্ন ব্যক্তিত্ব আখ্যায়িত করে তার রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের সদস্যবর্গ ও আত্মীয়স্বজনদের প্রতি গভীর সহমর্মিতা জানান।

দ্য রিপোর্ট