মুন্সীগঞ্জ যেন এক দৈত্যপুরী!

মোজাম্মেল হোসেন সজল: সামান্য বিরতি দিয়ে মুন্সীগঞ্জে আবার শুরু হয়েছে খুন-খারাবি। দীর্ঘ হচ্ছে লাশের মিছিল। যেখানে সেখানেই পাওয়া যাচ্ছে লাশ। বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে সন্ত্রাসীরা, চলছে অস্ত্রের ঝনঝনানি, গুলি আর খুন এখন প্রায় নিত্যঘটনা। সন্ত্রাসীদের ভয়ে সাধারণ মানুষকে থাকতে হচ্ছে সদা সন্ত্রস্ত। এদের হাতে গত ২৮দিনে খুন হয়েছে ১৩ জন। এদের খুনের শিকার শিশু-কিশোর থেকে বৃদ্ধ। আর চুরি, ডাকাতি, চাঁদাবাজি, অপহরণ, নারী নির্যাতন- এসবতো সাধারণ ঘটনা। সব মিলিয়ে মুন্সীগঞ্জ পরিণত হয়েছে এক দৈত্যপুরীতে। ক্ষমতাধর এ দৈত্যের দল যখন যাকে খুশি যা ইচ্ছা তা করতে পারে। এদিকে জেলায় ১৩টি হত্যাকান্ডগুলোর মধ্যে মুন্সীগঞ্জ সদরে ২, টঙ্গীবাড়িতে ১, লৌহজংয়ে ১, সিরাজদিখানে ৩, শ্রীনগরে ৩ ও গজারিয়া উপজেলার ৩ জন রয়েছে। এরমধ্যে অজ্ঞাতনামা মৃতদেহ রয়েছে ৫ টি।

সূত্র মতে, গত ১৮ই অক্টোবর সকাল সাড়ে ৮টার দিকে টঙ্গিবাড়ি উপজেলার বড়লীয়া সোনারং) গ্রামের একটি পুকুর থেকে অজ্ঞাত (৪৫) এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

গত ১৫ ই অক্টোবর সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরমুক্তারপুর এলাকার শিশু ছাওয়াদ দেওয়ানের (৬) মৃতদেহ নারায়নগঞ্জের কয়লাঘাট এলাকার একটি মুরগী ফার্মের কাছে ডোবা থেকে উদ্ধার করা হয়। স্ত্রী তানিয়ার সঙ্গে বিরোধের জের ধরে শিশুপুত্র ছাওয়াদকে গত ১৩ ই অক্টোবর রাতে বাড়ি থেকে চিকিৎসার কথা বলে নিয়ে গলাটিপে হত্যা করে পাষন্ড পিতা জুলহাস দেওয়ান (৩৫)। এ ঘটনায় জুলহাস দেওয়ানের স্বজনরা ১৫ ই অক্টোবর বিকেল ৫টার দিকে জুলহাস দেওয়ানকে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

গত ৮ই অক্টোবর বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে শহরের উত্তর ইসলামপুরস্থ ফরাজীবাড়ি ঘাট এলাকার ধলেশ্বরী নদীর শাখা খাল কালিদাস সাগর থেকে অজ্ঞাতনামা (৫০) এক মহিলার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

৭ই অক্টোবর সকাল সাড়ে ৭টায় গজারিয়া উপজেলার ভবেরচর কলেজ রোড এলাকার সুফিয়া বেগম (৫০) নামে এক মহিলার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগের দিন ৬ই অক্টোবর দিবাগত রাতে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। নিহত সুফিয়া বেগম ওই এলাকার প্রয়াত হযরত আলীর স্ত্রী। লাশটি এলাকার একটি ধানক্ষেত থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আকরাম হোসেন (২৩) ও শফিউদ্দিন (৪৭) নামে দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ।

৫ই অক্টোবর সকালে ঢাকা চট্রগ্রাম মহাসড়কের গজারিয়া উপজেলার পুরান বাউশিয়া এলাকায় রেজাউল (২৫) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে ভবেরচর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি। নিহত ব্যক্তি রংপুরের নূরু মিয়ার ছেলে।

গত ৪ঠা অক্টোবর রাত ৯টার দিকে গজারিয়া উপজেলার তেতৈইতলা গ্রামে দু’পক্ষের সংঘর্ষে মনসুর আলী প্রধান (৬৫) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছে। নিহত মনসুর আলী প্রধান সন্ত্রাসী হামলায় নিহত আওয়ামী লীগ নেতা শামছুদ্দিন প্রধানের চাচা। এলাকার আধিপত্য নিয়ে বিরোধের জের ধরে ওইদিন রাত ৯ টার দিকে উপজেলার তেতৈতলা গ্রামে বালুয়াকান্দি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জুয়েল প্রধান ও গজারিয়া উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বোরহানউদ্দিন ভুইয়া ও নূরে আলমের সমর্থিতরা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় দুই গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, গুলিবর্ষণ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপে চলাকালে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মনসুর আলী প্রধান ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। এছাড়া সংঘর্ষে আরও ১২ জন আহত হয়েছে। এঘটনায় গজারিয়া থানায় বোরহান উদ্দিনকে প্রধান আসামী করে ১৪ জনের বিরুদ্ধে নিহত মনসুর আলী প্রধানের ছেলে আব্দুল আলী প্রধান বাদী একটি হত্যা মামলা করেছেন।

গত ৩ রা অক্টোবর রাতে শ্রীনগরে গলা কেটে ও পিটিয়ে ২ যুবককে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ওইদিন রাত পৌনে ৮টার দিকে শ্রীনগর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের কাছে স্থানীয় ভেজগাঁও গ্রামের রাহাত শেখের নেতৃত্বে ১৫-২০ জনের একটি দুর্বৃত্ত গ্রুপ সিরাজুল ইসলাম সিরাজ চোকদার (৫৫) নামে এক ভাঙারি ব্যবসায়ীকে এলোপাতাড়ি পেটায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর ৩ রা অক্টোবর দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে সিরাজ চোকদার মারা যায়। নিহত সিরাজ চোকদার উপজেলার যশুরগাঁও গ্রামের প্রয়াত নুরুল ইসলাম চোকদারের ছেলে।

একই দিন রাত সাড়ে ৮টার দিকে পুলিশ শ্রীনগর উপজেলার বাঘড়া বাজারের পূজা মন্ডপের পেছনের পুকুর পাড় থেকে শামসু (২২) নামে এক যুবলীগ কর্মীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে। লাশ উদ্ধারের ২০মিনিট আগে তাকে বাঘড়া গরুর হাটে দেখা গেছে বলে তার প্রতিবেশীরা জানান। নিহত শামসু বাঘড়া এলাকার প্রয়াত সোলেমান পাঠানের পুত্র।
গত ৩ রা অক্টোবর বেলা ১১টার দিকে সিরাজদিখান উপজেলার রাঙ্গাভিলা সড়ক থেকে ওই সিএনজি চালক জুয়েল রানার (৩১) গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। জুয়েল রানাকে হত্যা করে তার সিএনজি ছিনতাই করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।

এর আগে আগের দিন ২ রা অক্টোবর দিবাগত রাতে এ হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়। নিহত জুয়েল রানা পার্শ্ববর্তী শ্রীনগর উপজেলার পশ্চিম কোলাপাড়া গ্রামের আব্দুর রশীদের ছেলে।

গত ১লা অক্টোবর দুপুর ১২ টার দিকে সিরাজদিখান উপজেলার চান্দেরচর এলাকার ধলেশ্বরী নদী থেকে অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবকের (২৬) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
গত ৩০শে সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টার দিকে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের চালতিপাড়ার একটি পুকুর থেকে অজ্ঞাতনামা এক যুবকের (৩০) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

২৬ শে সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার দক্ষিণ কাজীর পাগলা গ্রামের একটি ধনচে ক্ষেত থেকে হাত বাঁধা অবস্থায় অপহ্নত রফিকুল ইসলাম রফিকের (৪০) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তার দু’পায়ের রগ কাটা ছিল। রফিক কাজীরপাগলা গ্রামের প্রয়াত আফজাল মুন্সীর ছেলে ও লৌহজং উপজেলা যুব লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ছিলেন। এর আগের দিন ২৫ শে সেপ্টেম্বর ঢাকার ইসলামপুরের কর্মস্থলে যাওয়ার পথে বাড়ির প্রায় দেড় শ’ মিটার দূরের কাজীর পাগলা কাদের সড়ক থেকে সকাল সাড়ে ৮টায় ওঁৎ পেতে থাকা চিহ্নিত একদল অপহরণকারী একটি মাইক্রোতে তুলে নিয়ে গিয়ে যুবলীগ নেতা রফিককে হত্যা করে।

২০শে সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টার দিকে শ্রীনগর উপজেলার ঢাকা-দোহার সড়কের বালাশুর বৌবাজার এলাকা থেকে এক আজ্ঞাত যুবকের (২৭) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার জানান, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। মামলাগুলোর তদন্ত হচ্ছে এবং অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।

মুন্সীগঞ্জ বার্তা

Comments are closed.