সংগঠকদের লাগাম টেনে ধরছে এনএসসি

সংগঠকদের লাগাম টেনে ধরছে এনএসসিগঠনতন্ত্রের ২৩ নাম্বার অনুচ্ছেদে ফেডারেশন ও সংস্থার নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে ১১টি ধারা রয়েছে। এর ২৩.১১ নং ধারায় বলা হয়েছে, একই ব্যক্তি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অধীনস্থ ফেডারেশন/সংস্থার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বা সমপর্যায়ের পদে অধিষ্ঠিত থাকতে পারবেন না। এই নিয়ম অনুযায়ী কয়েকটি ফেডারেশনের বর্তমান সাধারণ সম্পাদকদের পদ ছাড়তে হবে।ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া সংগঠকদের লাগাম টেনে ধরছে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। একই ব্যক্তি একই সঙ্গে বিভিন্ন ক্রীড়া ফেডারেশন ও জেলা-বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকতে পারবেন না বলে নিয়ম করা হচ্ছে। এই নিয়ম অনুযায়ী জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদকরা কোনো জাতীয় ক্রীড়া ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হতে পারবেন না। যদি তিনি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হন তাহলে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হতে পারবেন না, হলেও তাকে ওই পদ ছাড়তে হবে।

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ কর্তৃক ফেডারেশন ও সংস্থার জন্য প্রণীত আদর্শ গঠনতন্ত্রে এই নিয়ম রাখা হয়েছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গেছে, আদর্শ গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ ২৩-তে ফেডারেশন ও সংস্থার নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে ১১টি ধারা রয়েছে। এর ২৩.১১ নং ধারায় বলা হয়েছে, একই ব্যক্তি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অধীনস্থ ফেডারেশন/সংস্থার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বা সমপর্যায়ের পদে অধিষ্ঠিত থাকতে পারবেন না। এই নিয়ম অনুযায়ী কয়েকটি ফেডারেশনের বর্তমান সাধারণ সম্পাদকদের পদ ছাড়তে হবে।

বাংলাদেশ ভলিবল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এবং অভিজ্ঞ ক্রীড়া সংগঠক আশিকুর রহমান মিকু একই সঙ্গে নড়াইল জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক। প্রায় দুই যুগ ধরে তৃণমূল পর্যায়ে ক্রীড়া সংগঠক। একই সঙ্গে তিনি বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনেরও উপমহাসচিব। প্রশ্ন হচ্ছে, ভলিবল ও বিওএ’র উপমহাসচিবের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন কিভাবে? যদিও ঢাকা ও নড়াইল সামাল দিতে ভালোই অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন এই সংগঠক। ব্যক্তিগতভাবে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ক্রীড়ার সেবা দিতে তার ভালোই লাগে বলে জানান।

বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম একই সঙ্গে মুন্সীগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থারও সাধারণ সম্পাদক। যতদূর জানা যায়, তিনি ঢাকা জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সঙ্গেও জড়িত। ঢাকায় বসবাসকারী এই সংগঠক জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যক্রম পরিচালনা করেন কিভাবে?

বাংলাদেশ সাঁতার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মো. রফিজ উদ্দিন রফিজ গাজীপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার পাশাপাশি বাকি সময়টুকু খেলাধুলায়ই ব্যয় করে থাকেন। তার মতে, ‘যারা দক্ষ, ভালো কিছু করতে পারে তারা সবক্ষেত্রেই কাজ করতে পারে।’

এছাড়া অন্যান্য জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তারাও বিভিন্ন ফেডারেশনের গুরুত্বপূর্ণ পদে রয়েছেন। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হয়েও ক্রীড়া ফেডারেশনের গুরুত্বপূর্ণ কোষাধ্যক্ষ পদে রয়েছেন দু-একজন।

সচেতন ক্রীড়া সংগঠকদের মতে, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হয়ে ক্রীড়া ফেডারেশনেরও সম্পাদক হওয়ার বিষয়টি রীতিমতো হাস্যকর। নিয়ম অনুযায়ী একটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার ৪৩টি ক্রীড়া বিষয়ে কার্যক্রম চালাতে হয়। জেলা থেকে এসে কিভাবে জাতীয় ক্রীড়া ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন তিনি? তারপরও তারা সাধারণ সম্পাদক হওয়ার লোভ ছাড়তে পারেন না। ফলে দুটো সংগঠনই ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

এনএসসির আদর্শ গঠনতন্ত্রে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ধারা অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। ২৩.১০ ধারায় বলা হয়েছে, যে কোনো ফেডারেশনের নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক হতে হলে তাকে সংশ্লিষ্ট ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী পরিষদে অন্তত একটি পূর্ণ মেয়াদ বা চার বছর দায়িত্ব পালন করতে হবে। কোনো ফেডারেশনে হঠাৎ করে কোনো ব্যক্তির সাধারণ সম্পাদক হওয়ার ক্ষেত্রে এই ধারা প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়াবে।

যায় যায় দিন

Comments are closed.