শিশুপুত্রকে হত্যার ঘটনায় ঘাতক পিতা কারাগারে : দাফন সম্পন্ন

মুন্সীগঞ্জে পাষন্ড পিতার হাতে নিহত শিশুপুত্র ছাওয়াদ দেওয়ান (৬)-কে দাফন করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বাদ জোহর মিরেশ্বরাই ঈদগাঁ প্রাঙ্গণে জানাযা শেষে একই কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে। এদিকে, গ্রেপ্তারকৃত ঘাতক পিতা জুলহাস দেওয়ান (৩৫)-কে আজ বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এরআগে বুধবার বিকেল ৫ টার দিকে জুলহাস দেওয়ানকে গ্রেপ্তার করা হয়। নিহত শিশু ছাওয়াদ দেওয়ানের (৬) মৃতদেহ বুধবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে নারায়নগঞ্জের কয়লাঘাট এলাকার একটি মুরগী ফার্মের কাছে ডোবা থেকে উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, স্ত্রীর সঙ্গে বিরোধের জের ধরে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরমুক্তারপুর এলাকার জুলহাস দেওয়ান তাঁর শিশুপুত্রকে ঢাকায় চিকিৎসার কথা বলে বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। পরে ওইদিন রাত ৮টায় ঢাকার গুলিস্থান শপিং কমপ্লেক্সের কাছ থেকে শিশু ছাওয়াদ হারিয়ে গেছে বলে স্ত্রী তানিয়াকে জানায়। এ ঘটনা সন্দেহ হলে ওইরাতেই তানিয়ার বাবা আলী হোসেন বাদী হয়ে ঢাকার পল্টন মডেল থানায় একটি জিডি (জিডি নং-৭৯০) করেন। পরে সন্দেহ আরও প্রকট হলে জুলহাস দেওয়ানের স্বজনরা বুধবার বিকেল ৫টার দিকে জুলহাস দেওয়ানকে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। আটকের পর পুলিশের কাছে নারায়নগঞ্জের কয়লাঘাট এলাকায় শিশুপুত্রকে গলাটিপে হত্যা করার কথা স্বীকার করে ঘাতক জুলহাস দেওয়ান।

এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়ের ফকির জানান, শিশুটির মৃতদেহ সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে নারায়নগঞ্জ কয়লাঘাট এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের বাড়িতে এনে লাশ দাফন করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ঘাতক পিতা জুলহাস দেওয়ানের বিরুদ্ধে অস্ত্র, মাদকসহ ৪টি মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে স্ত্রী তানিয়া বেগম আজ বৃহস্পতিবার সকালে বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

মুন্সীগঞ্জ বার্তা

Comments are closed.