ঈদে ব্যতিক্রমী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

sadarEidঈদ আনন্দকে স্মরণীয় করে রাখতে ঈদের দিন সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসকের বাংলোতে আয়োজন করা হয় ব্যতিক্রমী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিল্পীদের রবীন্দ্র, নজরুল, লালন, ভাটিয়ালি ও দেশাত্মবোধক গানসহ নানা পরিবেশনা উপস্থিত দর্শক শ্রোতাদের মুগ্ধ করে। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন জেলা প্রশাসক তনয়া মালিহা আক্তার অর্পিতা, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা যুগ্ম সচিব সওদাগর মুস্তাফিজুর রহমানের কন্যা সাজিয়া রহমান গল্প, চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেলাল উদ্দিনের কন্যা নাবিলা বিনতে হেলাল, এডিএম একেএম সওকত আলম মজুমদারের কন্যা তাহিয়া মেহনাজ আলম ও মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বলের পুত্র ফায়রুজ জাওয়াত অহৃত।

এ ছাড়া অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবদুল কুদ্দুস আলী সরকার ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির প্রশিক্ষক আওলাদ হোসেন সঙ্গীত পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠানে তবলা সঙ্গত করেন মো. আলমগীর হোসেন। জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল ও তাঁর পত্নী লেডিস ক্লাব এবং মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সভানেত্রী শাহিনা আক্তারের আমন্ত্রণে এই অনুষ্ঠানে সপরিবারে অংশ নেন পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা যুগ্ম সচিব সওদাগর মুস্তাফিজুর রহমান, চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেলাল উদ্দিন, এডিএম একেএম সওকত আলম মজুমদার, এডিসি আবদুল কুদ্দুস আলী সরকার, সদরের ইউএনও সারাবান তাহুরা, লৌহজংয়ের ইউএনও মো. খালেকুজ্জামান, গজারিয়ার ইউএনও মাহবুবা বিলকিস, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল, এনডিসি মোহাম্মদ মাসুম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহেদ ইকবাল প্রমুখ।
sadarEid
সুরের মূর্ছনায় ঈদের আনন্দে যেন ভিন্ন মাত্র যুক্ত হয়। গানে গানে সকলের মনে কথাই যেন ছাড়িয়ে পড়ছিল সুর আর ছন্দে। মুগ্ধ শ্রোতারা তাই বলেছেন, শরতের সন্ধ্যার ক্ষণটি তাদের অনেকদিন ধরে মনে থাকবে। ঈদের দিনের শ্রেষ্ঠ একটি সন্ধ্যা কাটিয়েছেন তাঁরা।

জনকন্ঠ

Comments are closed.