শ্রীনগরের কুকুটিয়ায় গৃহবধূকে নির্যাতন

rape 48মো. আরিফুল ইসলাম শ্যামল: মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার কুকুটিয়ায় স্বামীর অবর্তমানে ননদ ও ননদের জামাই কর্তৃক এক গৃহবধূর অমানুষিক নির্যাতনের খবর পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ শ্রীনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কুকুটিয়া সুদীয়া গ্রামের পূর্ণ কর্মকার তার শ্যালক অজিদ দাসকে গত এক বছর পূর্বে লৌহজং উপজেলার ঘৌড়দৌড় নিবাসী রেখা রানী দাসের সঙ্গে বিবাহ দেন। বিয়ের এক থেকে দেড় মাসের মধ্যে রেখা রানীকে রেখে তার স্বামী অজিদ দাস বিদেশ গমন করেন। স্বামীর অবর্তমানে তার বড় বোন অর্চনা কর্মকার ও তার স্বামী পূর্ণ কর্মকারসহ পরিবারের অন্যান্যরা রেখা রানীর উপর কারণে অকারণে নির্যাতন চালাতে শুরু করে। নির্যাতনের মাত্রা দিন দিন বাড়তে থাকে। অবশেষে রেখা রানী বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন, যার নং-১৪০৮, তাং-৩১/০৮/২০১৪ইং।

এ বিষয়ে কুকুটিয়া ইউনিয়ন আ.লীগ সভাপতি রেজাউল করিম রেজা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, পূর্ণ কর্মকার ও তার স্ত্রী অর্চনা কর্মকার অনাগ্রহের কারণে তাদের এ কোন্দলের মীমাংসা করা সম্ভব হয়নি। শুনেছি পূর্ণ কর্মকার ও অর্চনা কর্মকার, রেখা রানীর ব্যাপারে অজিদ দাসের কাছে উল্টা-পাল্টা কথা বলায় সে এখন রেখার কোনও খোঁজ খবরও নিচ্ছে না। ফলে রেখা রানী এখন অসহায় জীবনযাপন করছে।

উল্লেখ্য যে, অজিদ দাসের বাড়ি সাভার হলেও সে ছোট বেলা থেকেই পূর্ণ কর্মকারের বাড়িতে থাকেন এবং বিয়ের পর বউকে নিয়ে ঐ বাড়িতেই ওঠেন। বিদেশ গমনকালে অজিদ দাস স্ত্রী রেখা রানীকে তার বোনের বাড়িতেই রেখে যান।

এ বিষয়ে পূর্ণ কর্মকার ও তার স্ত্রী অর্চনা কর্মকার এর সাথে যোগাযোগ করলে তারা ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, স্ত্রীর খোঁজ খবর নেয়া তার স্বামীর ব্যাপার।

দেশপত্র

Comments are closed.