পঞ্চসার স্বেচ্ছাসেবক দল নেতার বাড়িতে গুলি ভাঙচুর লুটপাট

hamla4মুন্সীগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক দল নেতার বাড়িতে গুলি, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় অন্তত শতাধিক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়। জ্বালিয়ে দেয়া হয় একটি মোটরসাইকেল। লুট করা হয় নগদ ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা ও ৭ ভরি ওজনের সোনার গহনা। গুলির শব্দে এলাকার লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৪ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করেছে। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের বণিক্যপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার জন্য পঞ্চসার ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাজী নুরুল হক স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মীদের দায়ি করেছেন। স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা ও ব্যবসায়ী হাজী নুরুল হক, গত একমাস আগে দুপুর ২টার দিকে তার বণিক্যপাড়া বাড়িতে তার স্ত্রীর মোবাইল ফোন, গলার চেইন ও আঙটি চুরি হয়। পরে এলাকার মঞ্জিল শেখের ছেলে তুহিন চুরি হওয়া মোবাইলটি বাড়িতে ফেরত পাঠায়।

এ সময় নূরুল হক ব্যবসায়ী কাজে সিঙ্গাপুর ছিলেন। গত ৪ দিন আগে তিনি সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরেন। বুধবার আসর নামাজের পর তার বাড়িতে চুরি হওয়ার ঘটনাটি এলাকার মাদবরদের জানিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলেন। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে এলাকার তুহিন, ডা. মোতালেবের ছেলে সনি, হাসেমের ছেলে আলকাস ও বুনু সৈয়ালের ছেলে ইকবালের নেতৃত্বে ৪০-৫০ জনের একদল কর্মী গুলি ছুঁড়তে ছুঁড়তে বাড়িতে প্রবেশ করে।

এ সময় বাড়ির গেটের সামনে রাখা তার ছোট ভাই আনোয়ারের মোটরসাইকেলটি জ্বালিয়ে দেয়। তারা বাড়ির দ্বিতল ভবনে উঠে ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে আসবাবপত্র ভাঙচুর, শোকেস থেকে ৭ ভরি সোনার গহনা ও নগদ নগদ ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা লুট করে গুলি ছুড়তে ছুড়তে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ওসি আবুল খায়ের ফকির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় রাতেই ৪ জনকে এজাহারনামীয়সহ অজ্ঞাত ২০-২৫ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে।

মানবজমিন

Comments are closed.