টঙ্গীবাড়ীতে ১৩ দিনের ব্যাবধানে একই চাষীর ৫ টি পুকুরে বিষ প্রয়োগ

crime৩০ লক্ষ টাকার ক্ষতি
ব.ম শামীম: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আবদুল্লাহপুর গ্রামের শরীফ হোসেনের ৬ একর পরিমাপের ৫ টি পুকুরে ১৩ দিনের ব্যাবধানে বিষ প্রয়োগ করে প্রায় ৩০লক্ষ টাকার মাছের ক্ষয়-ক্ষতি করেছে দূর্বত্তরা। মঙ্গলবার রাতে তার পাইকপাড়া স্কুলের সামনের দিঘি, পাশের পুকুর এবং আবদুল্লাহপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনের পুকুরে বিষ প্রয়োগ করলে বুধবার সকালে পুকুরের মাছ মরে ভেষে উঠতে দেখে তাকে খবর দেয় এলাকাবাসী।

বুধবার ক্ষতিগ্রস্থ পুকুরগুলো পরিদর্শন করেছেন টঙ্গীবাড়ী থানা ওসি আ. মালেক। এর আগে গত ৩ সেপ্টেম্বর রাতে তার হাসকিরা ও আবদুল্লাহপুর এলাকার অপর দুটি পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে কে বা কাহারা। ওই ঘটনায় শরিফ গত ৪ সেপ্টেম্বর টঙ্গবাড়ী থানায় অভিযোগ করলে কোন ব্যাবস্থা নেয়নি পুলিশ বলে জানায় মাছচাষী শরিফ। সে আরো জানায়, দির্ঘদিন যাবৎ জমি সংক্রান্ত বিষয় ও টাকা পয়সা লেনদেন নিয়ে উপজেলার উত্তর পাইকপাড়া গ্রামের তার স্ত্রীর বড় ভাই শেখ কাউসার ও শেখ আরিফের সাথে তার বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরে ইতিপূর্বে তার স্ত্রী শীলার মোবাইলে ফোন করে তাদের পুকুরের সব মাছ মেরে ফেলার হুমকী দেয় কাওসার।

শরিফ আরো জানায়, আরিফ ও কায়সার স্থাণীয় প্রভাবশালী ব্যাক্তি ও ক্ষমতাসীন দলের লোক হওয়ায় পুলিশ তার মামলা নিচ্ছেনা। তাকে আদালতে মামলা করতে বলেছে পুলিশ। টঙ্গীবাড়ী থানার ওসি আ. মালেক জানান, এ ঘটনায় আমার কাছে কেউ অভিযোগ করেনি। আমি অন্য কাজে ওই এলাকায় গেলে পুকুরে মাছ মরা দেখেছি। তবে কে বা কাহারা মাছ মেরেছে তা কেউ বলতে পারেনি।

Comments are closed.