সিরাজদিখানে ছেলের বিরুদ্ধে থানায় মা-বাবার মামলা

salamsheikh জমির দলিল চুরি
‘আপনারা আমার বড় পোলারে থানায় আইন্যা আটক করেন। নাইলে আমার পোলা আমাগো বুড়াবুড়িরে সম্পত্তির লেইগা মাইরা হালাইব। আমাগো পিটাইয়া আধামরা করছে। কোনোমতন পলাইয়া মাইয়ার বাড়ি গিয়া চিকিৎসা নিয়া আইছি। হেয় তার নামে বেবাক সম্পত্তি লেইখা নিতে চায়।’ কথাগুলো বলছিলেন মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার জৈনসার গ্রামের আবদুস সালাম শেখ। এ সময় তাঁর স্ত্রী রাজিয়া বেগমও সঙ্গে ছিলেন। গত বৃহস্পতিবার রাতে সিরাজদিখান থানায় হাজির হয়ে ওই দম্পতি তাঁদের বড় ছেলে মো. গিয়াসউদ্দিনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানান।

জানা গেছে, আট সন্তানের জনক কৃষক আবদুস সালাম শেখ পৈতৃক সূত্রে পাওয়া বাড়ি ও তাঁর কেনা ৫০ শতক জমিতে কৃষিকাজ করে সংসার চালান। তিন ছেলে, পাঁচ মেয়ের মধ্যে ছোট দুই ছেলে মালয়েশিয়ায় থাকেন। পাঁচ মেয়ের বিয়ে হয়েছে। তিন ছেলের কেউ তাঁদের ভরণপোষণ দেয় না। কৃষিকাজ করে কোনোমতে তাঁদের দুজনের চলে যায়। সপ্তাহখানেক আগে বড় ছেলে বাড়ি ও জমির দলিলপত্র চুরি করে নিয়ে গিয়ে তাঁর নামে দলিল করে সব সম্পত্তি লিখিয়ে নিতে চায়।
salamsheikh
আবদুস সালাম বলেন, ‘আমার তিন ছেলে, পাঁচ মেয়ে সবাই এই সম্পত্তির মালিক। আমি কেন অবাধ্য নেশাখোর বড় পোলা গিয়াসউদ্দিনকে এ জমি একা লিখে দিমু। আমাগো তো ও মাইরা ফালাইব। কোনোমতে সাইজা মাইয়ার কাছে আইছি। এক সপ্তাহ ধইরা মাইরা বাড়ির বাইর কইরা দিছে। কোনো খোঁজখবর লয় না। লোকের মুখে শুনি, বাড়ি গেলে রাতে ঘরে মাইরা হালায়া রাখব।’

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর তালুকদার বলেন, ‘আবদুল সালাম শেখ আমাকে ফোন করেছিলেন। তাঁর অস্পষ্ট কণ্ঠে কিছু বুঝতে পারিনি। তাঁকে আমি বাসায় এসে সব কিছু খুলে বলতে বলেছি। বৃদ্ধ অসহায় মা-বাবাকে মেরে ফেলবে সম্পত্তির জন্য এটা খুব খারাপ কথা।’

সিরাজদিখান থানার ওসি আবুল বাসার বলেন, আবদুস সালাম শেখ ও রাজিয়া বেগম লিখিত অভিযোগ করেছেন। এ ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজ – কালের কন্ঠ
ছবি – মুন্সিগঞ্জের কাগজ

Comments are closed.