লৌহজংয়ে পদ্মা চরের খাজনা নেওয়া আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু

Lau khajnaমুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার পদ্মার বুকে জেগে ওঠা বিশাল চরের জমির মালিকদের ভূমি উন্নয়ন কর (খাজনা) আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করেছে প্রশাসন। এর মধ্য দিয়ে চরের জমির খাজনা-সংক্রান্ত জটিলতার অবসান ঘটল। শনিবার দুপুরে লৌহজং উপজেলা মিলনায়তনে জমির মালিকের হাতে খাজনার রসিদ তুলে দিয়ে খাজনা গ্রহণ অনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি এস এম সামসুদ্দিন মানিক, জাতীয় সংসদের সাবেক হুইপ অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি ও জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল।

দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি প্রতিফলিত হওয়ায় আনন্দের বন্যা বয়ে যায় নদীভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত কয়েক হাজার পরিবারের মধ্যে। অনেক প্রবীণ মালিক বাপ-দাদার ভিটা ফেরত পেয়ে আনন্দে কেঁদে ফেলেন। ভূমি মালিকরা জানান, চরের লাঠিয়াল প্রভাবশালী একটি মহল এই জমিগুলো দখল করে গ্রাস করার পাঁয়তারা চালাচ্ছিল। হাইকোর্টের রিট পিটিশনের আদেশ ও ভূমি মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনার আলোকে উপজেলা রাজস্ব ও ভূমি অফিস এই খাজনা আদায় করছে।
Lau khajna
জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন মজুমদার, শেখ মো. লুৎফর রহমান, ওসমান গনি তালুকদার প্রমুখ।

কালের কণ্ঠ

Comments are closed.