মাওয়ার ৩ নং ঘাটে সিরিয়ালের নামে চাঁদাবাজি

mawa chadabazi1মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌ-রুটের মাওয়া পয়েন্টের নতুন তিন নম্বর ফেরি ঘাটে যানবাহন সিরিয়াল দেওয়ার নামে চাঁদাবাজির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার দুপুরে মাওয়া ঋষিবাড়ি এলাকায় অবস্থিত (পুরাতন ২ নম্বর ঘাট) ৩ নম্বর ঘাটে এ ঘটনা ঘটে।

চাঁদাবাজির সময় হাতেনাতে ধরা পড়ে মো. বাবুল হোসেন বলেন, গাড়ির সিরিয়ালের জন্য বিভিন্ন ট্রাক ও ছোট-বড় গাড়ি হতে ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত নেওয়া হয়। তবে এ সব টাকা স্থানীয় নেতা আশরাফ ভাই, হামিদুল, জামান ও সুমনদের সিন্ডিকেটের কাছে দেওয়া হয়।

তিনি আরও জানান, আমাদের সঙ্গে কাজ করে আলমগীর হোসেন, দেলোয়ার হোসেন ও মনির হোসেনসহ আরও অনেকে। আমাদের প্রত্যেককে এ কাজের জন্য পারিশ্রমিক হিসেবে প্রতিদিন ৭০০ টাকা করে দেওয়া হয়।
mawa chadabazi1
আশরাফের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন- আমি বাবুল নামে কাউকে চিনি না। এটা আমার নামে রাজনৈতিক অপপ্রচার। তাছাড়া এ কাজ তো করে ট্রাফিক পুলিশ। এখানে তো আমাদের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই।

নারায়ণগঞ্জের পাগলা থেকে পটুয়াখালীগামী রডবাহী ট্রাকের ড্রাইভার মোহাম্মদ হালিম বলেন- এখানে চাঁদা নতুন কিছু নয়। ভিড় বেশি থাকলে টাকার পরিমাণ বেশি দিতে হয় এবং ভিড় কম থাকলে কম টাকা দিতে হয়।
mawa chadabazi2
মাওয়া পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ খন্দকার খালিদ হোসেন জানান, বিচ্ছিন্নভাবে প্রতিনিয়ত এমন অভিযোগ পাওয়া গেলেও কাউকে এ পর্যন্ত ঘটনাস্থলে এসে পাওয়া যায়নি। তবে হাতেনাতে আটক করা বাবুল হোসেনকে (৪৫) জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা হবে কারা করাচ্ছে এই কাজ। এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে আমরা সর্বদা প্রস্তুত আছি যে কোনো অনৈতিক কর্মকাণ্ড মোকাবেলা করার জন্য।

দ্য রিপোর্ট