পদ্মা বিপদসীমা অতিক্রম করায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

kumarvogরবিবার পদ্মায় পানি আরো বেড়েছে। ফলে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর, লৌহজং ও টঙ্গিবাড়ী উপজেলা। পানি উন্নয়ন বোর্ডের পূর্বাভাস অনুযায়ী আগামী দু-এক দিনের মধ্যে পদ্মা-যমুনায় পানি আরো বাড়বে। বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট জীবন-মরণের সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে।

মুন্সীগঞ্জের ভাগ্যকুল পয়েন্টে পদ্মা গতকাল সকাল ৯টায় বিপৎসীমার আট সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বইছিল। গত ২৪ ঘণ্টায় আট সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়ে মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর, লৌহজং ও টঙ্গিবাড়ী উপজেলার পদ্মা অববাহিকার নিম্নাঞ্চলের আরো অনেক এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এই বন্যায় পানিবন্দি মানুষের কষ্টের সীমা নেই। ফসলি জমি তলিয়ে গেছে। তিন উপজেলার বহু মানুষ পড়েছে নানা দুর্ভোগে। উজানের
kumarvog
মুন্সীগঞ্জে পদ্মা বিপৎসীমা অতিক্রম করায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ থেকে তোলা ছবি।

পানি নেমে আসার কারণে বন্যার পরিস্থিতি এই অঞ্চলে আরো অবনতি হতে পারে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ ও পানি বিশেষজ্ঞ মো. আরিফুর রহমান। মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল জানান, নিম্নাঞ্চলের মানুষের খোঁজখবর রাখা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট ইউএনওরা সার্বিক পরিস্থিতি তদারকি করছেন। মুন্সীগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রুহুল আমিন জানান, পূর্বাভাস অনুযায়ী ২৮ আগস্ট পদ্মার এই পয়েন্টে পানি আরো বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ১১ সেন্টিমিটার ওপরে উঠতে পারে। এই পয়েন্টে সর্বোচ্চ পানি ছিল ১৯৯৮ সালের বন্যায় এক মিটার ২৮ সেন্টিমিটার। অর্থাৎ পানির লেভেল ছিল ৭ মিটার ৫৮ সেন্টিমিটার।

কালের কন্ঠ