প্রেমের টানে যশোরের চায়না বেগম গজারিয়ায়!

love১২ আগস্ট ২০১৪: প্রেমের টানে যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলার রড়খানপুর গ্রামের মৃত: ইয়াকুব মন্ডলের মেয়ে চায়না বেগম(১৭) মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায়। গত ৬আগষ্ট যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলার রড়খানপুর তার বাবার বাড়ী থেকে পালিয়ে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার চর-চৌদ্দকাউনিয়া এলাকায় চলে আসেন।

জানাগেছে, গজারিয়া উপজেলার চর- চৌদ্দকাউনিয়া এলাকার মো: বিল্লাল হোসেনের ছেলে আল- আমীন(২১) সাথে মোবাইল ফোনে দেড় বছর প্রেমের সম্পর্ক চলে সেই সুত্রধরে যশোরের মেয়ে চায়না বেগম গজারিয়া আল- আমীনের বাড়ীতে চলে আসে। পরবর্তীতে চায়না বেগমের ভাই মিজানুর রহমান বোনের সন্ধান পেয়ে এলাকার লোকজন নিয়ে গজারিয়ায় বোনকে নিতে আসলে চায়না বেগম ভাইয়ের সাথে যশোর যেতে অস্কীকৃতি জানালে ভাই মিজান এলাকার মেম্বারের নিকট লিখিত কাগজের মাধ্যমে জিম্মায় রেখে যান।

এ ব্যাপারে সোমবার রাত ১০টায় চৌগাছা থানার উপ পরির্দশক মুন্সী আবু কুদ্দুস গজারিয়ায় এসে মেয়ে টিকে এলাকার মেম্বার রফিকুল ইসলামের কাছ থেকে জোর পূর্বক নিয়ে যায়। এবিষয়ে চৌগাছা থানার উপ পরির্দশক মুন্সী আবু কুদ্দুস জানান, কোথাও খোজা খুজি করে না পাওয়ায় ১০/০৮/২০১৪ইং তারিখে মেয়েটির ভাই বাদী হয়ে চৌগাছা থানায় একটি অপহরন মামলা দায়ের করেন। পরে খোজ পেয়ে গজারিয়া থানা সহযোগিতায় মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়।

এলাকাবাসী জানায়, মেয়েটি যেহেতু প্রেম করে একাই চলে আসছে তাহলে কেন ছেলের বিরুদ্ধে অপহরন মামলা করা হবে। এবিষয়ে চায়নার সাথে কথা হলে সে জানায়, আমার সৎ ভাইয়েরা আমাকে জোর অন্যত্র বিয়ে দিতে চায় এবং আমার নামে থাকা জমি ও বাড়ী জোর করে নিজেদের নামে লিখে নিতে চায়। তাই আমি নিজের ইচ্ছায় গজারিয়ায় চলে আসি। এখন আমাকে নিয়ে গিয়ে অন্যত্র বিয়ে দিয়ে দিবে এমনকি জমি জোর করে লিখে নিয়ে আমাকে মেরেও ফেলতে পারে বলে জানায়।

ঢাকার নিউজ