৩ দর্শনীয় স্থানে পর্যটকের উপচে পড়া ভীড়

baudhaBiharঈদের ছুটিতে শনিবার সারাদিন পর্যটকদের ঢল নামে মুন্সীগঞ্জের দর্শনীয় স্থান গুলোতে। সারাদিন নারী-পুরুষ-শিশুর উপচে পড়া ভীড় দেখা গেছে হাজার বছরের পুরাকীর্তি সমৃদ্ধ পৃথক ৩ টি দর্শনীয় স্থান।

হাজার বছর আগের সভ্যতার পীঠভূমি বৌদ্ধ বিহার, জাদুঘর ও অতীশের জন্মভূমিতে সব বয়সের মানুষের বাঁধ ভাঙ্গা খুশিতে ঈদ আনন্দ ত্রি-মাত্রিক রুপ নেয়।

জেলা সদরের বজ্রযোগিনীতে বৌদ্ধ ধর্মের জ্ঞান তাপস অতীশ দ্বীপংকরের বাড়ি, রঘুরামপুরে সদ্য আবিস্কৃত বিক্রমপুর বৌদ্ধ বিহার ও শ্রীনগর উপজেলার বালাশুর গ্রামে যদুনাথ রায়ের জমিদার বাড়িতে নব-নির্মিত “বিক্রমপুর জাদুঘরে ছিল পর্যটকদের মিলনমেলা।

শ্রীজ্ঞান অতীশ দ্বীপংকরের বাড়ি ও বৌদ্ধ বিহারের মধ্যে দুরত্ব কম হওয়ায় এই দু’টি দর্শনীয় স্থানে সবচেয়ে বেশী ভীড় লক্ষ্য করা যায়।
baudhaBihar
ঈদ ঘিরে রাজধানী থেকে ছুটে আসেন বৌদ্ধ ধর্মালম্বী বেশ সংখ্যক নারী-পুরুষও। আগত নারী-পুরুষ-শিশু গনমাধ্যম কর্মীদের সামনে কথা বলতে গিয়ে ঈদের উচ্ছ্বাস প্রকাশের ভাষা হারিয়ে ফেলেন।

মায়ের সঙ্গে বৌদ্ধ বিহারে আসা ৫ বছরের তিশা আক্তার ভাঙ্গা কন্ঠে বলল- আ-মা-র অ-নে-ক আ-ন-ন্দ লাগছে-ছে। অতীশের বাস্তুভিটায় আগত রিপন মোল্লা বলেন- দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখা মানে মনের ক্ষুধা মিটল। আবার উচ্ছ্বাসে উচ্ছ্বাসে ঈদের আনন্দ উপভোগ তো হল।

দর্শনার্থী জেসমিন আরা বলেন, এ সব পুরাকীর্তি ও প্রতœ-নিদর্শন ঈদ আনন্দে নতুন মাত্রা এনে দিয়েছে। ঈদের খুশিতে একাকার সবাই।

বিডিলাইভ