হাবিবের জন্যই আমার পুনর্জন্ম হয়েছে!

habib22তিনি ছিলেন আশির দশকের পপ তারকা। ফেরদৌস ওয়াহিদের পথ অনুসরণ করেই ছেলে হাবিব ওয়াহিদ এই প্রজন্মের জনপ্রিয় সংগীততারকাদের মধ্যে একজন। বাবা দিবস উপলক্ষে গ্লিটজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সংগীতজগতে ছেলের পথচলা নিয়েই স্মৃতিচারণ করলেন ফেরদৌস ওয়াহিদ। সেই সঙ্গে বললেন নিজেদের সম্পর্কের গল্পও।

গ্লিটজ: ছোটবেলার হাবিব ওয়াহিদ কেমন ছিলেন?

ফেরদৌস ওয়াহিদ: সে ছোটবেলাতে অন্য ছেলেদের চেয়ে শান্ত ছিল। কিন্তু তার মধ্যে সংগীতপ্রীতিটা কাজ করতো। দুই বছর বয়স থেকেই সে এ নিয়ে বেশ আগ্রহ দেখাতো, নিয়মিত গান শুনতো।

গ্লিটজ: আপনার ক্যারিয়ারই কি আপনার ছেলের সংগীতপ্রীতিতে প্রভাব ফেলেছে?

ফেরদৌস ওয়াহিদ: সেটা তো পড়েছেই। এ ব্যাপারে আমি বেশ দায়িত্বশীল ছিলাম। ও প্রায়ই আমার ইন্সট্রুমেন্টগুলো নিয়ে ঘাঁটাঘাটি করতো। রেওয়াজের সময় আমার পাশেই বসে থাকতো। আট বছর বয়সেই সে মোটামুটি হারমোনিয়াম আর গিটার বাজানো শিখে ফেলে।

গ্লিটজ: আপনার ছেলেই কি আপনার গানের সবচেয়ে বড় ভক্ত?
habib22
ফেরদৌস ওয়াহিদ: সবচেয়ে বড় ভক্ত কিনা বলতে পারবো না। তবে সে আমার গানগুলো শুনতো, অনেক পছন্দও করতো। ছেলেকে দেখেই বুঝেছিলাম, ও নিজেও মিউজিক জগতে আসবে।

গ্লিটজ:হাবিব যখন লন্ডনে পড়তে যান, তখন তার এ সিদ্ধান্তে আপনি কি সম্মত ছিলেন?

ফেরদৌস ওয়াহিদ: ঠিক মতও ছিল না, আবার অমত ও করিনি। আমি বলেছিলাম তাকে সংগীত নিয়েই পড়াশোনা করতে। কিন্তু ও চেয়েছিল ব্যারিস্টারি পড়তে।

গ্লিটজ: লন্ডন থেকে ফেরার পর হাবিব সংগীত জগতে পদার্পন করলেন কিভাবে?
habib23
ফেরদৌস ওয়াহিদ: ও ব্যারিস্টারি পড়তে গেলেও পরবর্তীতে সংগীত নিয়েই পড়াশোনা করে। লন্ডন না গেলে হয়তো হাবিব আজকের হাবিব ওয়াহিদ হয়ে উঠতো না। আমার অনুমানই পরে সঠিক হলো, বাংলাদেশে এসে পুরোদমে গান নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়লো, অ্যালবাম বের করলো।

গ্লিটজ: ছেলে আপনার পথ অনুসরণ করছে- এ ব্যাপারে আপনার অনুভূতি কেমন?

ফেরদৌস ওয়াহিদ: আমি খুবই খুশি। ওর স্বপ্ন ছিল ও সংগীত নিয়ে কিছু করবে, সেটা ও করতে পারছে।

গ্লিটজ: ছেলের সংগীতে আসা আপনার জীবনে কি রকম প্রভাব ফেলেছে?

ফেরদৌস ওয়াহিদ: বলতে গেলে প্রায় অনেক দিন গান থেকে দূরে সরে ছিলাম। পুরোপুরি ঝিমিয়ে গিয়েছিলাম। হাবিব আসার পরই আমাকে আবার গানের জগতে ফিরে আসার জন্য জোরাজুরি করলো। একসঙ্গে কাজ করার জন্য বললো। এরপর আবার পুরোদমে কাজ শুরু করলাম, অ্যালবাম বের করলাম, জিঙ্গেলে কণ্ঠ দিলাম। সত্যি কথা বলতে, হাবিব ওয়াহিদের জন্যই ফেরদৌস ওয়াহিদ এর পুনর্জন্ম হয়েছে।

গ্লিটজ: আপনাদের বাবা-ছেলে সম্পর্কটা কিরকম?

ফেরদৌস ওয়াহিদ: বন্ধুসুলভই বলা চলে। হাবিবের ইচ্ছের দাম দিয়েছি সব সময়। যেখানে কঠোর হওয়া দরকার, সেখানে কঠোর হয়েছি। পাশাপাশি তার সঙ্গে মিশেছি বন্ধুর মতো।

গ্লিটজ: হাবিবের ছোটবেলার কোন স্মরণীয় ঘটনা?

ফেরদৌস ওয়াহিদ: ও প্রায়ই আমার স্টুডিও তে বসে থাকতো, বসে বসে আমার কাজ দেখতো। ও তখন এইটে পড়ে। একদিন বসে কম্পোজিশন করছিলাম। আমার তালে ভুল হচ্ছিল বলে হাবিব আমাকে শুধরে দিলো। আমি অবাক হয়ে ভাবলাম, এতটুকু একটা ছেলে কিভাবে আমার ভুলগুলো ধরিয়ে দিচ্ছে!

গ্লিটজ: হাবিবকে ভবিষ্যতে কোথায় দেখতে চান?

ফেরদৌস ওয়াহিদ: ও এখন বেশ ভালো করছে। ওর শ্রোতাও আছে প্রচুর। গায়ক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। ও যাই করুক, সবসময় ভালো করুক এটাই প্রত্যাশা। এছাড়া তেমন আর কিছু চাওয়া নেই।

বিডিনিউজ