বিবাহ রেজিষ্টারকে জেল, মেম্বারকে জরিমানা

jailটঙ্গীবাড়িতে বাল্যবিবাহ
মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে বৃহস্পতিবার বাল্যবিবাহ ভেঙ্গে দিয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন পারভীন। এ ঘটনায় বিবাহ রেজিষ্টারকে মোবাইল কোর্টে ১মাসের জেল ও বিয়ের ইন্দনদাতা স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বারকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

জানা গেছে উপজেলার ধামারন গ্রামের আব্দুল মোল্লা তার মেয়ে আমেনা আক্তার (১৪) এর বিয়ের আয়োজন করে কে.শিমুলিয়া ইউনিয়নের বিবাহ রেজিষ্টার সাইফুল ইসলামকে সকালে খবর দেয়।

সাইফুল ইসলাম ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোতালেবকে সঙ্গে নিয়ে আমেনার বয়স ১৪ থেকে ১৮তে বাড়িয়ে জন্ম নিবন্ধনের জন্য কে.শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদে যায়। ইউনিয়ন পরিষদের সচিব তানিয়া আক্তার মোবাইল ফোনে ঘটনাটি ইউএনওকে জানায়। সঙ্গে সঙ্গে ইউএনও পুলিশ নিয়ে সাইফুল ও মোতালেবকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করে বিয়ে বাড়িতে এসে আমেনার বিয়ে বন্ধ করেন।

পরে দুপুর ১টার দিকে ইউএনও অফিসে মোবাইল কোর্টে বিচার করে জড়িত দু’জনকে এ দন্ডাদেশ দেয়া হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন পারভীন জানান, গত বুধবার টঙ্গীবাড়িতে বাল্যবিবাহ রোধ করা নিয়ে বড় ধরনের সেমিনার আয়োজন করে বিবাহ রেজিষ্টারদের সাবধানী হতে বলা হলেও এক দিন পরেই এ ঘটনা দু:খজনক।

মুন্সীগঞ্জ বার্তা