শ্রীনগরে অবিবাহিত এক পুরুষকে জোড় করে স্থায়ী বন্ধা করা হয়েছে!

oporadhআরিফ হোসেন: শ্রীনগরে অবিবাহিত এক পুরুষকে জোড় করে স্থায়ী ভাবে বন্ধা (এনএসভি) করে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা এগারটার দিকে উপজেলার ভাগ্যকূল উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে এঘটনা ঘটে। এসময় উত্তেজিত জনতা এনএসভি করাতে আসা ডাক্তার, কর্মচারী ও সেচ্ছাসেবক সহ চার জনকে প্রায় দুই ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। এক পর্যায়ে তারা হাসপাতালের চেয়ার টেবিল ভাংচুর ও ডাক্তার, কর্মচারীদের লাঞ্চিত করে।

এঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ ভাগ্যকূল এলাকার মৃত দিল মোহাম্মদের ছেলে বাবুল (৪০) জানান, তিনি বেলা এগারটার দিকে ভাগ্যকূল বাজারে আসলে ইউসুফ নামে এক লোক তাকে পার্শ্ববর্তী উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। এসময় পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের ডাক্তার (এম,সি,এইচ,এফ,পি) খোরশেদ আলম ও তার সহকারী বুলবুল আহমেদ (সেকমো) এবং ইলিয়াস খান (এফপিআই) একটি গোপন কক্ষে ডেকে নিয়ে তাকে এনএসভি করে দেয়।

পরে তাকে দুই হাজার টাকা ও একটি লুঙ্গি দিয়ে বিদায় করে দেওয়া হয়। কিছুক্ষন পর বাবুল ভাগ্যকূল বাজারে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি দু-একজনকে জানালে তারা এনএসভি সমন্ধে বিস্তারিত বলার পর বাবুল মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পরে ও এর বিচার দাবী করে। এতে কয়েক শ জনতা উত্তেজিত হয়ে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের একটি কক্ষে ডাক্তার কর্মচারীদের অবরুদ্ধ করে লাঞ্চিত করে।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এব্যাপারে ডা: খোরশেদ আলম জানান, বাবুল নিজেকে বিবাহিত এবং তিন সন্তানের জনক হিসাবে পরিচয় দেওয়ায় আমাদের সেচ্ছাসেবক ইউসুফ তাকে ডেকে আনার পর আমরা তাকে এনএসভি করে দেই।