ফিরিঙ্গীবাজারে গৃহবধু রোজিনার আগুনে পুড়ে মরা : হত্যা না আত্মহত্যা

deadহত্যা না আত্মহত্যা-এ নিয়ে মুন্সীগঞ্জ সদরের ফিরিঙ্গীবাজার এলাকায় গৃহবধু রোজিনা বেগমের (২৮) আগুনে পুড়ে মৃত্যুর ঘটনায় দুই পরিবারের পরস্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে। সরেজমিনে ফিরিঙ্গীবাজার এলাকায় গেলে নিহতের মা চাঁন বাহার দাবী করেন- রোজিনার চাচা শ্বশুর ১ লাখ টাকা ধার চাইলে না দেওয়ায় রোজিনাকে উপর নির্মম নির্যাতন করে।

পরে রাতের আঁধারে শরীরের কেরোসিন ঢেলে আগুনে দিয়ে ঝলসে দেওয়া হয় রোজিনাকে। স্বামী কুয়েত প্রবাসী জহির মোল্লার অবর্তমানে শ্বশুর বাড়ির লোকজন এর আগেও নির্যাতন করে। অভিযুক্ত চাচা শ্বশুর মোক্তার মোল্লা দাবী করেন- রোজিনা এর আগে আরো ২ বার আত্মহত্যা করার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়।

ওই রাতে প্রবাসী স্বামীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে ঝগড়া করে নিজ শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়।

সদর থানার এসআই মোশারফ হোসেন বলেন- এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। গৃহবধুর বাবার পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যার অভিযোগ দিলে পুলিশ গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য গত ৭ জুন দিবাগত গভীর রাতে ফিরিঙ্গীবাজার এলাকায় স্বামীর বাড়িতে আগুনে পুড়ে গৃহবধু রোজিনার মৃত্যু হয়।

বিডি টুয়েন্টিফোর