সাংবাদিক মাহবুবুল আলম আজিমপুর কবরস্থানে সমাহিত

mahbubul alom1আজিমপুর কবরস্থানে সমাহিত করা হয়েছে দেশের শীর্ষ স্থানীয় ইংরেজি দৈনিক দি ইনডিপেনডেন্ট পত্রিকার সাবেক সম্পাদক, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও প্রখ্যাত সাংবাদিক মাহবুবুল আলমকে। এর আগে প্রেসক্লাবে তার তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে তার দীর্ঘদিনের সহকর্মী, সাংবাদিক, রাজনীতিবিদসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানান। প্রবীণ এ সাংবাদিকের মৃত্যুতে গতকাল শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।

জানাজার আগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন আহমদ ও তার ছোট ভাই ফরিদুল আহসান মিন্টু বক্তব্য রাখেন। জানাজা শেষে সাংবাদিক ইউনিয়ন, ও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক দল ও সংগঠনের পক্ষে মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়। এর আগে আজ শনিবার বেলা দেড়টার দিকে তার মরদেহ প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে নিয়ে আসা হয়।
জানাজায় বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, দৈনিক সমকাল সম্পাদক গোলাম সারোয়ার, ডেইলী স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম, প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান, নিউজ টুডে সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল ও মহাসচিব আবদুল জলিল ভূইয়া, বিএফইউজে মহাসচিব এমএ আজিজ, ডিইউজে সভাপতি আলতাফ মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক কুদ্দুস আফ্রাদ, আবদুল হাই শিকদার ও সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ ও দৈনিক সমকাল প্রকাশক এ কে আজাদ অংশগ্রহণ করেন।

অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনূল হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা মোজাফফর হোসেন পল্টু, ব্যারিস্টার রফিক উল হক, আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন অংশ নেন। জানাজার পর মরহুমের মরদেহে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানায় বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস), বিএনপি, বিএফইউজে, ডিইউজে, জাতীয় প্রেসক্লাব, নিউজ পেপারস ওর্নাস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (নোয়াব), বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, জাসদ (রব), ঢাকা সাব এডিটরস কাউন্সিল, সম্পাদক পরিষদ, ফটো জার্নলিস্ট এসোসিয়েশন, ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি( ডিআরইউ), চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন, মুন্সীগঞ্জ এসোসিয়েশন, দৈনিক সমকাল, জাতীয় প্রেসক্লাব কর্মচারী ইউনিয়ন, তার আগে গুরুত্বর অসুস্থ অবস্থায় বৃহস্পতিবার তাকে এ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের আইসিউতে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। গতকাল সকালে রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে চিকিসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহে ওয়াইন্না ইলাইহে রাজেউন)। এর পর গতকাল শুক্রবার বাদ আসর গুলশানের আজাদ মসজিদে তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

বর্ণাঢ্য সাংবাদিকতা জীবনে মাহবুবুল আলম অনেক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বও পালন করেন। তার জন্ম ১৯৩৫ সালের ৫ ফেবরুয়ারি। ১৯৫৩ সালে এসোসিয়েশস প্রেস অব পাকিস্তান (এপিপি) সংবাদ সংস্থা থেকে তার সাংবাদিকতা শুরু। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ থেকে তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা বাসস এর প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন।

কর্মজীবনে তিনি নিউ নেশন, অধুনা বিলুপ্ত সাপ্তাহিক ডায়ালগের সম্পাদক ছিলেন। সর্বশেষ তিনি দি ইন্ডিপেন্ডেট সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে অবসরে যান। ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের তথ্য উপদেষ্টা ছিলেন মাহবুবুল আলম। স্বাধীনতার পর লন্ডন হাইকমিশন ও ওয়াশিংটন দূতাবাসে দীর্ঘদিন প্রেস মিনিস্টার হিসেবে কাজ করেন তিনি। মাহবুবুল আলম পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বহির্বিশ্ব বিভাগের মহাপরিচালক ছিলেন। আগামী ৯ জুন বাদ মাগরিব তার ছোট ভাই ফরিদুল আহসান মিন্টুর বাসভবনে (গুলশান রোড নং ৪৮ বাড়ি নং-১০/এ ) দোয়া মাহফিল আয়োজন করা হয়েছে।

এবিনিউজ