কালের কণ্ঠ ইউআইইউ-বিআইডিডি আউটসোর্সিং উৎসব

kk outsourceপ্রযুক্তি আমাদের খুলে দিয়েছে এক অপার সম্ভাবনার দ্বার। বর্তমানে প্রযুক্তি নির্ভর এই ইন্টারনেটের বিশাল দুনিয়ায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই হাজারও শিক্ষার উপকরণ ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। এই সবের মধ্যে সঠিক উপকরণটি খুঁজে বের করে সে অনুযায়ী নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে। প্রয়োজন শুধু সঠিক দিকনির্দেশনা। সব ভালো কাজে প্রতিবন্ধকতা থাকবেই, এটাই বাস্তবতা। তবুও সঠিক দিকনির্দেশনা অনুসরণ করে এগিয়ে যেতে হবে।

পৃথিবীতে কোন কাজই কঠিন নয়। বরং আমরাই কাজকে কঠিন করে তুলি। বর্তমানে প্রযুক্তি নির্ভর বিশাল দুনিয়ায় আপনিও পারেন বিস্তার ঘটাতে। প্রথমে সেই বিষয়টি স্থির করুন আপনার মন কি চায়। এবং সেই অনুযায়ী অধ্যবসায়ী হোন। একটি কথা মনে রাখবেন ‘সবাই যদি পারে তাহলে, আপনিও পারবেন’। সঠিক নিয়ম-কানুন মেনে, নিজের মেধাকে কাজে লাগিয়ে সঠিক কাজটাই শিখুন। কিন্তু বাংলাদেশে জনবলের সংকট না থাকলেও রয়েছে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত লোকের অভাব। অনেকেই চাকরির পেছনে না ঘুরে তথ্যপ্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে এখন ঘরে বসে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করছেন।

বাংলাদেশের জনবল ও বেকারত্বের বিষয়টি আমলে নিয়ে জনসংখ্যাকে জনসম্পদে পরিণত করার উদ্দেশে দেশের জনপ্রিয় দৈনিক কালের কণ্ঠ, ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ইউআইইউ) ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউটি অব ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (বিআইডিডি) যেৌথভাবে দেশজুড়ে আউটসোর্সিং কর্মশালা কর্মসূচি শুরু করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার মুন্সীগঞ্জ সরকারী হরগঙ্গা কলেজর আশুতোষ হলরুমে সকাল ১০টায় ও দুপুর ২টায় দুই শিফটের ওয়ার্কশপের মাধ্যমে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় শিক্ষার্থীদের আউটসোর্সিং সম্পর্কে ধারণা এবং প্রত্যেককে ২০০ পৃষ্ঠার একটি ই-বুক দেওয়া হয়। ওয়ার্কশপে দুই দফায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কালের কণ্ঠের মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি মো. মাসুদ খান। কলেজের অধ্যক্ষ মো. সাহেদুল কবিরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন দেশের শ্রেষ্ট ও মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও তথ্য প্রযুক্তি) সাগরিকা নাসরিন, বিআইডিডির চেয়ারম্যান সুব্রত রাহা, মুন্সীগঞ্জ প্রেস ক্লাব সভাপতি মীর নাসির উদ্দিন উজ্জল। আনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন মো. আবু নাইম। kk outsource জেলা প্রশাসক বলেন, প্রত্যেক ব্যক্তির থাকতে হবে একটি পরিকল্পিত লক্ষ্য। সেই লক্ষ্যে যদি ব্যক্তি অটুট থাকে, তাহলে তার স্বপ্নের জায়গাটায় পৌঁছাতে খুব একটা সমস্যা হয় না।’ তিনি বলেন, আউটসোর্সিং সম্পর্কে ধারণা থাকলে বহির্বিশ্বে বিশাল ব্যবসার জায়গা রয়েছে। আর শিক্ষার্থীরা যদি দলবদ্ধ হয়ে কাজটি করতে পারে, তাহলে তারা প্রত্যেকেই সমানভাবে লাভবান হবে। এ ধরনের উদ্যোগ ব্যক্তির পাশাপাশি দেশেরও ব্যাপক কাজে আসবে। তিনি আরও বলেন, মুন্সীগঞ্জ থেকে ছয় শতাধিক ছাত্র ছাত্রীকে আউটসোসিং সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দিতে জেলা প্রশাসন উদ্যোগ নিয়েছে। খুব শিগগিরই জেলার ৬টি উপজেলায় এ কার্যক্রম শুরু করা হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সাগরিকা নাসরিন বলেন, আমারা যদি তরুণ প্রজন্মকে কাজে লাগাতে পারি, তবে দেশে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা খুর কষ্ট সাধ্য ব্যাপার নয়। আর অউটসোসিংয়ের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ নিয়ে তরুণ সমাজ এ খাতে এগিয়ে এলে দেশ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে এগিয়ে যেতে পারে। কোন কিছুতে ভয় পেলে চলবেনা। নিজেদেরকে যোগ্য প্রজন্ম হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

মুন্সীগঞ্জ প্রেস ক্লাব সভাপতি মীর নাসির উদ্দিন উজ্জল বলেন, প্রযুক্তির বিশ্বে তথ্য যোগ্যতার মধ্যে টিকে থাকতে হবে। এ জন্য নিজেকে দক্ষ হিসেব গড়ে তোলার বিকল্প নেই। আউটসোসিংয়ের মাধ্যমে নিজেকে স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে তোলা অতি জরুরি। তাই বিজ্ঞানী স্যার জগদীস চন্দ্র বসুর জেলা মুন্সীগঞ্জ তথা বিক্রমপুরে কালের কণ্ঠের এ উদ্যোগ যুগান্তকারী অধ্যায় হিসেবে বিবেচিত হবে।

বিআইডিডির চেয়ারম্যান সুব্রত রাহা বলেন, দেশের ৬৪ জেলায় এ প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করা হবে। প্রতি জেলায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী ওই কর্মশালায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে। এতে দেশব্যাপী আউটসোর্সিং সম্পর্কে সচেতনতা বাড়বে। তৈরি হবে দক্ষ জনশক্তি। ঘুচবে বেকারত্ব। আউটসোর্সিংয়ের কাজে প্রত্যেককে তিনি সত্ ও নিষ্ঠাবান থাকার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, সত্ না থাকলে এ পেশায় উন্নয়ন অসম্ভব। এই প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রদান করেন, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এস.ই.ও.) ও অ্যাফিলিয়েশন সৈয়দ তাজুল ইসলাম ও প্রশিক্ষক নোমান আসলাম।

কালের কন্ঠ