পদ্মা সেতু করবে চীনা কোম্পানি

padmaপদ্মা সেতু কাঠামো নির্মাণের জন্য চীনা একটি প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচিত করা হয়েছে জানিয়ে যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে কার্যাদেশ দেয়া হবে।

বাংলাদেশের বহু প্রতীক্ষিত এই সেতু নির্মাণের দায়িত্ব পেতে যাচ্ছে চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড। দরপত্র ডাকার পর শুধু এই প্রতিষ্ঠানটিই দরপ্রস্তাব জমা দিয়েছিল।

ওবায়দুল কাদের সোমবার ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে বলেন, “পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ও স্থানীয় কারিগরি কমিটির নিরীক্ষায় মূল পদ্মা সেতু নির্মাণে চীনা এ কোম্পানিকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

“ক্রয় কমিটির অনুমোদন সাপেক্ষে তিন সপ্তাহের মধ্যে মূল পদ্মা সেতুর কার্যাদেশ দেয়া হবে। অগাস্টে নদী শাসনের কার্যাদেশ দেয়া হবে।”

২০১৭ সালের শেষে বা ২০১৮ সালের প্রথম দিকে অর্থাৎ সাড়ে তিন বছরে পদ্মা সেতুর মূল কাজ শেষ করার আশা প্রকাশ করেছেন যোগাযোগমন্ত্রী।

বিশ্ব ব্যাংকের সঙ্গে জটিলতার পর ৬ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু নিজস্ব অর্থে নির্মাণের ঘোষণা দেয়ার পর ২০১৩ সালে ২৬ জুন দরপত্র আহ্বান করা হয়েছিল।

চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানির পাশাপাশি ডেলিম এল অ্যান্ড টি জে ভি এবং স্যামসাং সি অ্যান্ড টি গ্রুপ দরপত্র কিনলেও গত ২৪ এপ্রিল আর্থিক প্রস্তাব জমা দেয়ার শেষ দিনে চীনা প্রতিষ্ঠানটিই শুধু তা জমা দেয়।

পদ্মা সেতুর মূল কাঠামো নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯ হাজার ১৭২ কোটি ১৭ লাখ টাকা। নদী শাসন ও সংযোগ সড়ক নির্মাণসহ অন্য সব মিলিয়ে মোট ব্যয় ২২ হাজার কোটি টাকা ছাড়াবে।

মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং গণচীনের রাষ্ট্রায়াত্ত কোম্পানি, এটি দেশটির রেল মন্ত্রণালয়ের অধীন। এই কোম্পানির বার্ষিক আয় ২০০ কোটি ডলার। কর্মীর সংখ্যা ৭৫ হাজার।

বিডিনিউজ