মোবাইল কাদেরের যাবজ্জীবন

courtঢাকার মতিঝিলে নিজ অফিসে খুন হওয়া ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের হত্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায়ে আসামী মোবাইল কাদেরের যাবজ্জীবন কারাদান্ডাদেশ দেওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে মামলার অন্যতম স্বাক্ষী ও মোবাইল কাদের গ্রুপের হামলায় প্রকাশে খুন হওয়া লৌহজংয়ের আওয়ামী লীগ নেতা নিহত মোবারক হোসেন খানের মেয়ে ওয়াহিদা খান দিয়া। কাদের হত্যা মামলার স্বাক্ষী দেওয়ায় মোবাইল কাদের মোবারক হোসেন খানকেও হত্যা করে বলে অভিযোগ রয়েছে।

মোবারক হোসেন খান হত্যা মামলার বাদী ওয়াহিদা খান দিয়া জানান, ২০০১ সালের ১৭ অক্টোবর যখন ব্যবসায়ী কাদেরকে মতিঝিলের নিজ অফিসে গুলি করে হত্যা করা হয়, তখন একই এলাকার বাসিন্দা হওয়ায় তার পিতা মোবারক হোসেন খান সেই সময়ে ব্যাবসায়ী কাদেরের অফিসে উপস্হিত ছিলেন। ব্যবসায়ী কাদের হত্যা মামলার প্রধান স্বাক্ষী ছিলেন তার পিতা মোবারক হোসেন খান। মামলার স্বাক্ষী হওয়ার কারণে ২০১২ সালের ১৮ অক্টোবর মোবাইল কাদের তার লোকজন দিয়ে মোবারক হোসেন খানকে নিজ বাড়ির অঙ্গিনায় লৌহজংয়ের কাজির পাগলা গ্রামে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করে। দিয়া পিতা হত্যার মামলার বাদী হয়ে মোবাইল কাদেরকে প্রধান আসামী করে লৌহজং থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। কিš‘ মোবাইল কাদের ও অপর আসামীরা জামিনে থেকে বিভিন্ন সময় মামলা তুলে নিতে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছিন। এমনকি পুলিশের সাথে আতাত করে মুন্সীগঞ্জের প্রত্যাহারকৃত তৎকালীন পুলিশ সুপার মোঃ হাবিবুর রহমানকে দিয়ে চার্জশীট থেকে মোবাইল কাদেরর নাম বাদ দিয়ে এ মামলার চার্জ গঠন করলে মামলার বাদী দিয়া তাতে না রাজি দিয়ে নি¤œ আদালতে আবেদন করেন। কিন্তু নিম্ন আদালত তার আবেদন খারিজ করে দেয়। পরবর্তীতে দিয়া মুন্সীগঞ্জ জজকোটে একটি রিভিশন মামলা দায়েল করেন। আগামী ২০ এপ্রিল এ মামলার শুনানী রয়েছে।

মোবাইল কাদেরের যাবজ্জীবন কারাদন্ড হওয়ায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে দিয়া বলেন, ফাঁসির রায় না হলেও যাবজ্জীবন সাঁজা হয়েছে মোবাইল কাদেরের তাতেই আমরা খুশি। অন্তত জেলে থাকলে টাকা দিয়ে পুলিশ কিনে আমার বাবার হত্যা মামলা ভিন্ন দিকে প্রভাবিত করতে পারবেনা। ব্যবসায়ী কাদের হত্যা মামলার স্বাক্ষী হওয়ায় সে আমার বাবাকেও হত্যা করেছে। নানা হুমকি ধমকির মধ্যে আমি একমাত্র সন্তান হয়ে এ মামলাটি চালিয়ে যাচ্ছি। মোবাইল কাদেরের অর্থ ও ক্ষমতার কাছে মামলাটি নিয়ে বারবার হোচট খাচ্ছিলাম। এখন যদি সে জেলে থাকে তবে আমার বাবা হত্যা মামলাটি তার নিজ গতিতে চলতে পারবে। আর মামলটি নিজ গতিতে চললে এ মামলা হতেও মোবাইল কাদের রক্ষা পাবেনা।

স্বদেশ