দিশেহারা মুন্সীগঞ্জের পাট চাষীরা

patমুন্সীগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় প্রচণ্ডখরায় নষ্ট হচ্ছে পাটক্ষেত। বৃষ্টির অভাবে পোকার আক্রমণে দিশেহারা কৃষক। সার, সেচ ও কীটনাশক প্রয়োগ করেও প্রতিকার মিলছে না। তাই সোনালী আঁশ উৎপাদনে অন্যতম এ জেলার চাষিরা মারাত্মক ফলন বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন।

দু-একদিন ছিটেফোটা বৃষ্টি হলেও দাবদাহ কমেনি। আর কদিন পরেই বৈশাখ মাস শেষ। তবুও বৃষ্টির দেখা মিলছে না। এবার তাপমাত্রা ৩৮ ডিগ্রিসেলসিয়াস থেকে সর্বোচ্চ ৪২ ডিগ্রিসেলসিয়াস পর্যন্ত উঠেছে। এতে ক্ষেতের পাট শুকিয়ে যাচ্ছে। দেখা দিয়েছে পোকার আক্রমণ। কীটনাশক প্রয়োগ করেও প্রতিকার মিলছেনা।

পাটচাষী হুবু মিয়া জানান, প্রচণ্ডরোদে পাটের বাড়ন্ত ব্যাহত হচ্ছে। বৃষ্টির অপেক্ষায় দিন গুনছে কৃষকেরা। জমিতে সার ও সেচ প্রয়োগ করেও পাটের কোনোপরিবর্তন হচ্ছে না। অতিরিক্ত সেচ, সার ও কীটনাশক প্রয়োগের কারণে পাট আবাদের খরচ বেড়েছে কয়েক গুন। তারপরও ফসল ঘরে তুলতে পারবে কিনা তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।

অর্থসূচক