পদ্মা সেতুতে পরোক্ষভাবে সহায়তা করতে চায় বিশ্বব্যাংক

padmaপদ্মা সেতুতে সরাসরি না হলেও পরোক্ষভাবে সহায়তা করতে চায় বিশ্বব্যাংক। বিশ্বব্যাংকের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান মাল্টিলিটারাল ইনভেস্টমেন্ট গ্যারান্টি এজেন্সির (মিগা) প্রধান কেইকো হোন্ডার সঙ্গে বৈঠকের সময় এ বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রীর আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বৈঠক শেষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর ইউহানেস জাট বলেন, বিশ্বব্যাংক শুরুতে পদ্মা সেতুর সঙ্গে থাকলেও পরবর্তী সময়ে তারা সরে যায়। পদ্মা সেতু বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকার ক্যাপাবল। বিশ্বব্যাংক ক্লাইমেট চেঞ্জ, নদী ড্রেজিংসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে- যা পরোক্ষভাবে পদ্মা সেতু বাস্তবায়নের কাজে লাগবে।

বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে এটি মিগার বিষয় নয়, এটি আইডিএ (IDA) বিষয়। তারা মূল পদ্মা সেতুর বাইরে অন্যান্য বিষয়ে সহায়তা করতে পারে।

রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের অবস্থিত পরিকল্পনামন্ত্রীর কক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এ ছাড়া বৈঠকে পদ্মা সেতুর বাস্তবায়ন, বাংলাদেশে সরকারি বিনিয়োগ বৃদ্ধি, অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগ, সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বিনিয়োগ ক্ষেত্র খোঁজা এবং বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিনিয়োগ বাড়ানো।

মিগার প্রধান বলেন, বাংলাদেশে ৩৩০ মিলিয়ন বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সহায়তা করছে তারা। বিদ্যুৎ, জ্বালানি এবং অবকাঠামো খাতে সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

২৭ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত চার দিনের সফরে বাংলাদেশে এসেছেন মিগার প্রধান।

দ্য রিপোর্ট