লৌহজংয়ে আওয়ামীলীগ-বিএনপির মর্যাদার লড়াই

lau al bnpশেখ সাইদুর রহমান টুটুল: লৌহজং থেকেঃ লৌহজং উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বড় দু ,দলের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী নিয়ে কোন বিরোধ নেই। তবে দু,দলের মধ্যে ছোট খাটো ভুল ত্রুটি ও মান অভিমান গুলো ভাঙ্গানোর চেষ্টা চলছে। এ ছোট খাটো সমস্যা দু,দলেই রয়েছে। এর মধ্যে দীর্ঘ দিন ক্ষমতায় না থাকায় এবং নানা সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত থাকায় বিএনপিতে এর প্রবনতাটা বেশি থাকলেও নির্বাচন কে ঘিরে মান অভিমান আর গ্রুপিং অনেকটা কমে এসেছে। তবে বড় দল হিসেবে আওয়ামীলীগেও কোন অংশে কম নেই।

এর পরও সকলের ঐক্যমতে তৃনমুল থেকে প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দু,দলই একক প্রার্থী দিয়েছেন।এদিক থেকে দু,দলেরই বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে কোন বারতি ঝামেলায় পরতে হয়নি। নির্বাচনে ৩টি পদে আওয়ামীলীগ-বিএনপির ৬জন প্রার্থী এছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সমর্থিত পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ও সতন্ত্র প্রার্থী মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আরো দু,জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। বিএনপি চাচ্ছে তাদের হারানো গৌরব পুনরুদ্বার করতে। আর আওয়ামীলীগ চায় জয়ের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে।
lau al bnp
আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আলহাজ ওসমান গনি তালুকদার (দোয়াত কলম) ও বিএনপির সমর্থিত প্রার্থী আলহাজ শাহজাহান খাঁন (আনারস) এর মাঝে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। এবারের নির্বাচন ওসমান গনি তালুকদার ও শাহজাহান খাঁনের আগামী দিনের রাজনৈতিক জীবনের অস্তিত্বের লড়াই হিসেবে দেখছেন অনেকে। রাজনৈতিক মাঠ দখলে বড় দু দলের প্রার্থীরাই জয় নিয়ে ঘরে ফিরতে চান, তবে আগামী ৩১ মার্চ তাদের ভাগ্য নির্ধারন হবে কে টিকে থাকবে রাজনৈতিক মাঠে। লৌহজং উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের ৪৫ টি কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ১লাখ ২৪ হাজার ৮শ ২৯জন।

নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে ততোই ব্যস্ত হয়ে পড়ছে প্রার্থীরা বিরামহীন ভাবে তারা প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে গণসংযোগ। গত ৫বছরে ওসমান গনি তালুকদার চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময়ে উপজেলায় কিকি উন্নয়ন মুলক কাজ করেছেন তারই হিসাব নিকাশ কসছেন সাধারন ভোটাররা। আবার ৫ বছরের উন্নয়নের কথা এখন চায়ের দোকান আর হাটÑবাজার গুলোতে খুব বেশি প্রচারিত হচ্ছে। যেমন উপজেলা কমপ্লেক্স ভবনে মসজিদ, লৌহজং বিশ্ব বিদ্যালয় কলেজে প্রায় দু কোটি টাকা ব্যায়ে নতুন ভবন নির্মান সহ বিভিন্ন উন্নয়নমুলক কাজে অনুদান প্রদান ও ৯২ সাল থেকে মুন্সিগঞ্জ জেলার ৬টি উপজেলার মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তি প্রদান সহ নানা উন্নয়ন মুলক কাজের সাক্ষর রেখেছেন তিনি।

অপর দিকে শাহজাহান খাঁন নিজ এলাকায় মসজিদ, মাদ্রাসা, কবরস্থান সহ দরিদ্র মানুষের সাহায্য সহযোগিতায় সব সময় এগিয়ে আসেন। আঞ্চলিকতার প্রশ্নে নিজ এলাকায় উপজেলা চেয়ারম্যান রাখতে চায় বেজগাঁও ইউনিয়ন বাসি। অপর দিকে ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চায় ৫ বছরের সফল চেয়ারম্যান ওসমান গনি তালুকদারের নিজ ইউনিয়ন কুমারভোগ ইউনিয়ন বাসি। নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ থেকে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ জাকির হোসেন বেপারী (তালা) ও বিএনপি থেকে মোঃ হাবিবুর রহমান অপু চাকলাদার (চশমা) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ থেকে মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন(বই) প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ থেকে নাজনিন আক্তার স্বর্না (পদ্ম ফুল) বিএনপি থেকে ডাঃ রিফফাত হোসেন লুচি (ফুটবল) সতন্ত্র থেকে সানজিদা আক্তার ডালিয়া (কলস) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। উভয় দল থেকে তরুন প্রার্থীদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। ভোটারদের ভোটের মাধ্যমে আগামী দিনের নীতি নির্ধারক নির্বাচিত হবে উপজেলা পরিষদে, আর সবার দৃষ্টি এখন ৩১ মার্চের নির্বাচনের দিকে।

বাংলাপোষ্ট