গজারিয়ায় নির্বাচন পরবর্তী সংঘর্ষে আহত ৩০

sssssগজারিয়া থানার ওসি জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলায় নির্বাচন পরবর্তী সংঘর্ষে অন্তত ২৮ জন আহত হয়েছে।গজারিয়ায় নির্বাচন পরবর্তী সংঘর্ষে আহত ৩০

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানিয়েছে, বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মান্নান দেওয়ান মনার সমর্থিত বাউশিয়া ইউনিয়নের ফরাজীকান্দি ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আমিরুল ইসলামের সমর্থক মধ্যমকান্দি গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে এ সংঘর্ষ হয়। এসময় ১০টি বসত-ঘর ভাংচুর করা হয়।

আহতদের মধ্যে আনিসুর রহমান (২৭), মজনু (৩০), সালমা বেগম (৩২), ইয়াজ ঢালী (৪৫), রফিক মিয়াকে (৬০) ভবেরচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে; মাহবুব আলমকে (২৫) ঢাকার ল্যাব-এইডে এবং ছোটন (২২), উজ্জল মিয়াকে (২০) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের স্থানীয় বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

গজারিয়া থানার ওসি মামুন-অর-রশিদ জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এর আগে গত রোববার গজারিয়া উপজেলার নির্বাচন হয়। নির্বাচনে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ব্যালট পেপার ছিনতাই ও একতরফা সিল মারার মহোৎসব হয়েছে। একটি ভোটকেন্দ্রে আওয়ামী লীগের দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ত্রিমুখী সংঘর্ষে নিহত হন বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন প্রধান (৪৫)।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে গজারিয়া উপজেলা নির্বাচনের ফল স্থগিত রয়েছে। উপজেলার ৯টি ভোট কেন্দ্রে পুনরায় ভোট হবে। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে এগিয়ে আছেন আওয়ামী লীগ নেতা রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা।

সমকাল