এভিজেএম বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব

avgmমুন্সীগঞ্জ শহরের কোর্টগাঁও এলাকাস্থ এভিজেএম সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন করছে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার সকালে সাড়ে ১০টায় শহরের থানারপুল এলাকায় মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্যের সামনে বেলুন উড়িয়ে ও শতবর্ষের লগো উম্মোচনের মধ্য দিয়ে শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন উদ্বোধন করেন-সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক এমপি মমতাজ বেগম।

এ সময় এটিএন নিউজের হেড অব নিউজ মুন্নী সাহা স্বপরিবারে উপস্থিত ছিলেন। এর আগে বিদ্যালয় প্রাঙ্গন থেকে থানারপুর পর্যন্ত একটি আনন্দ শোভা যাত্রা বের করা হয়। বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে স্মৃতি চারন করছে প্রাক্তন ছাত্রীরা। এ বিদ্যালয়টি ১৮৯২ সালে প্রতি্িষ্ঠত হয়। চলতি বছর ১’শ ২২ বছরে পদার্পন করেছে বিদ্যালয়টি।
avgm
বিডিটুয়েন্টিফোর
==

এভিজেএম উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শত বর্ষপূর্তি

মুন্সীগঞ্জ শহরের এভিজেএম (এলভার্ট ভিক্টোরিয়া যতীন্দ্র মোহন) সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে শুক্রবার শহরের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। র‌্যালীটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বিদ্যালয় মাঠে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন রেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল। শতবর্ষ উদযাপন কমিটির সভাপতি তহুরা জামানের সভাপতিত্বে স্মৃতিচারণ করেন সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ মমতাজ বেগম, খালেদা খানম, এটিএন নিউজের বার্তা প্রধান ও প্রাক্তন ছাত্রী মুন্নী সাহা ও বর্তমান প্রধান শিক্ষক শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

পরে প্রাক্তন ছাত্রী ও চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ শিল্পীরা মনোঞ্জ সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করে। বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের উপস্থিতিতে মিলন মেলায় পরিনত হয়। পুরনো স্মৃতিতে অনেকেই যেন নষ্টালজিয়ায় হারিয়ে যান। ১৮৯২ সালে প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়টি এখন ১২২ বছরে পর্দপন করছে।
avgm1
৯৬ ব্যাচের শিক্ষার্থী শহ্জাদী, রাজকুমার মুখার্জী, লাকী সুমিসহ এই ব্যাচের প্রায় ১০ বান্ধবী আড্ডায় মেতে উঠেন। সবারই বিয়ে হয়েছে। ঘর সংসারের পাশাপশি অনেকেই সার্ভিসও করছেন। তাদের প্রায় সকলেল সাথেই শিশু সন্তান। কিন্তু তারা যেন ফিরে গিয়ে ছিলেন দেড় যুগ আগের স্মৃতিতে। শহ্জাাদী আক্তার জানান, অনেকে কাছাকাছি থকলেও সবার সাথে এভাবে দেখা হয়না। আর যারা দূররান্তে আছে তাদের তো দেখা পাওয়া কঠিন। কিন্তু আজ সবাই সকত্রে তাই অনেকস্মৃতিই মনে পড়ছে। ক্লাস রুম মাঠ, শিক্ষক কিছুই ছিল আমাদের আপন। কিন্তু আমরা নেই আছে সবই। ৮৬ সালের ব্যাচের এটিএন নিউজের বার্তা প্রধান মুন্নী সাহা স্মৃতি চারণ করতে গিয়ে বলেন, আমার জীবনে এভিজেএম স্কুলের স্মৃতিই বেশী মনে পরে। আর আজকে যেন সব সমঋতি জলমল করছে।

এ্যাডভোকেট নাসিমা আক্তার বলেন, স্কুল জীবনের বন্ধুদের আজ কাছে পেয়ে অনেক বেশী ভালো লাগছে। মনে হয় ফিরে যাই সেই দিনগুলোতে। শতবর্ষ উদযাপন কমিটির সভাপতি তহুরা জামান স্মৃতি চারণ করতে গিয়ে বলেন, নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও পূতি অনুষ্ঠানটিতে সকলের সরব উপস্থিতি আমাকে অনেক আনন্দ দিয়েছে। মিলনমেলায় প্রাণ ছোয়া থাকায় মনে হচ্ছে আয়োজনটি সার্থক হয়েছে। আয়োজনটির স্পনার ক্রাউন সিমেন্টের কর্ণধার আলমগীর কবির বলেন, মুন্সীগঞ্জের নানা ঐতিত্যের জড়িয়ে আছে এই নারী বিদ্যাপীঠ। এখানকার ছাত্রীরা দেশ বিদেশের গরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছে। এর অগ্রযাত্রা তথা আলোকিত মানুষগড়্রা ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানটি আরও বেশী যত্মবান হবেন এই প্রত্যাশায় আমরা এগিয়ে এসেছি। আয়োজনকে বর্ণিল এবং স্মৃতি ধরে রাখতে একটি স্মরণিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

স্বদেশ