শ্রীনগরে শাহীন হত্যা মামলার একজন আসামিও গ্রেপ্তার হয়নি

shahinযুবলীগ নেতা খুন
মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বাঘরা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহীন (২৮) হত্যা মামলার একজন আসামিকেও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, ৬ মার্চ দোহারগামী একটি বাসে ঢাকা থেকে বাঘরায় গ্রামের বাড়িতে ফিরছিলেন শাহীন। আল আমিন বাজারের কাছে পৌঁছালে একদল দুর্বৃত্ত বাসটি থামিয়ে শাহীনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপায়। একপর্যায়ে তারা শাহীনকে তিনটি গুলি করে পালিয়ে যায়। পরে আশপাশের লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

এ ঘটনায় ১১ মার্চ শাহীনের ফুপু কানন বেগম বাদী হয়ে সোহেল, এমারত, রনি, বাঁধন ও রাসেল নামের পাঁচ ব্যক্তিসহ ২৩ জনকে আসামি করে শ্রীনগর থানায় মামলা করেন। শাহীনকে পরে ঢাকা মেডিকেল থেকে মোহাম্মদপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে শনিবার তিনি মারা যান।

হত্যার কারণ সম্পর্কে শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, ২০০১ সালের জুলাইয়ে সংঘটিত বাঘরার আলোচিত পাঁচ হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি হচ্ছেন শাহীনের বাবা মোসলেম মিয়া। কারাগারে থাকা অবস্থায় শাহীন হত্যা মামলার আসামি রাসেলকে মারধর করেন মোসলেম। সেই থেকে রাসেলের সঙ্গে তাঁদের বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধের সূত্র ধরেই শাহীনকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে নিশ্চিত হওয়া গেছে। শাহীন হত্যা মামলার অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের একটি দল কাজ করছে বলে ওসি জানান।

প্রথম আলো