অব্যাহতি চাইলেন খোকা

khoka resignঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়কের পদ থেকে অব্যাহতি চেয়েছেন দলটির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা। বুধবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনের ভাসানী মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান খোকা নিজেই।

খোকা জানান, তিনি দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়কের দায়িত্ব পালনে অপারগতা প্রকাশ করে এ-পদ থেকে অব্যাহতি চেয়েছেন।

একইসঙ্গে খালেদার সঙ্গে সাক্ষাতে ঢাকা মহানগর বিএনপি ‍আহ্বায়ক পদে নতুন তিন জনের নামও প্রস্তাব করেছেন জানিয়ে খোকা বলেন, দলের চেয়ারপারসনের কাছে সাক্ষাতে ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক পদে আমি তিন জনের নাম প্রস্তাব করেছি। এরা হলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ, মির্জা আব্বাস ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুল আউয়াল মিন্টু।
khoka resign
এদের মধ্যে এ পদে দায়িত্ব পালনে মির্জা আব্বাস ও মিন্টু অপারগতা প্রকাশ করেছেন জানিয়ে হান্নান শাহ দায়িত্ব পেতে পারেন বলে ইঙ্গিত দেন খোকা।

ঢাকা মহানগর বিএনপিতে দীর্ঘ ১৭ বছর দায়িত্ব পালনের কথা তুলে ধরে সাদেক হোসেন খোকা বলেন, দলের দায়িত্ব পালনে আমার আন্তরিকতার কোনো ঘাটতি ছিল না। আমি জিয়াউর রহমানের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ ও জনগণের জন্য কাজ করেছি।

তিনি বলেন, দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছি নাকি সফল হয়েছি সেটা জনগণ আর দলীয় নেতাকর্মীরাই বিচার করবেন।

তবে সম্প্রতি সরকারবিরোধী আন্দোলনে ঢাকা মহানগর বিএনপির ব্যর্থ হওয়ার সমালোচনার জবাবে তিনি বলেন, সরকারের বেপরোয়া আচরণ, দেখামাত্র গুলি, বাসা থেকে ধরে নিয়ে গুম, হত্যা ও নির্যাতনের কারণে নেতাকর্মীরা ভীত-সন্ত্রস্ত্র ছিল। এ কারণে সহজে মাঠে নামা সম্ভব হয়নি। এই অবস্থাও জনগণ বিচার করবেন।

তবে দলের নেতৃত্বে নতুন-তরুণদের আসা দরকার বলেও মন্তব্য করেন খোকা।

দলের মধ্যে অন্তর্কোন্দলের সমালোচনা করে দেশ ও জনগণের স্বার্থে রাজনীতি করার আহ্বান জানিয়ে খোকা জানান, ঢাকা মহানগর বিএনপি পরিচালনায় দলের চেয়ারপারসন নতুন যে কমিটি দেবেন সে কমিটির সঙ্গে কাজ করবেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর বিএনপির (বর্তমান কমিটি) সদস্য সচিব আবদুস সালাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নবীউল্লাহ নবী, আবদুল লতিফ, শামসুল হুদা, আলী আসগর, আবুল বাশারসহ মহানগর বিএনপির নেতারা।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর