মাওয়া ফেরিঘাট সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে

mawa-2-munshiganjজুনের মধ্যে মূল পদ্মা সেতুর কার্যাদেশ দেওয়া হবে। এ জন্য মাওয়া ফেরিঘাট অস্থায়ীভাবে শিমুলিয়ায়, স্থায়ীভাবে কান্দিরপাড়ে নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বৃহস্পাতিবার দুপুরে যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে এক আন্ত:মন্ত্রণাল সভা শেষে সাংবাদিকদের এ সিদ্ধান্তের কথা জানান যোগাযোগ মন্ত্রী।

মন্ত্রী আরও বলেন, অস্থায়ী ও স্থায়ী ফেরিঘাট নির্মাণ করবে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়। আর সেনাবাহিনী ফেরিঘাটের সংযোগ সড়ক নির্মাণ করবে ।

অস্থায়ী ফেরিঘাটে ব্যয় হবে ১০৫ কোটি টাকা। আর স্থায়ী ফেরিঘাট নির্মাণে ব্যয় হবে প্রায় ৫‘শ কোটি টাকার মতো। এটি পদ্মা সেতু নির্মাণের প্রতিবন্ধকতার মধ্যে একটি ছিল বলে মন্তব্য করেন যোগাযোগমন্ত্রী।

ঠিকাদারের কারণে মূল সেতুর কাজ শুরুতে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, দরপত্র জমাদানের শেষ তারিখ ছিল ৯ সেপ্টেম্বর। কিন্তু ঠিকাদারদের অনুরোধে ৪ বার সময় বর্ধিত করা হয়।

মন্ত্রী জানান, মাওয়া অ্যাপোচ রোড ও টোল প্লাজারা কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে নভেম্বর মাসে। আর অক্টোবর মাসে দেওয়া হয়েছে জাজিরা অ্যাপোচ রোড ও টোল প্লাজার কার্যাদেশ।

আন্ত:মন্ত্রণালয় সভায় নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী শাজাহান খান, পানি সম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর