ইউনাইটেড ক্লিনিকে লাশের দাম ২ লাখ টাকা

চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসার বলি দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র জহিরের পিতাকে ২ লাখ টাকা দিয়ে বিদায় করলো ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ। তার থেকে ৫০ হাজার টাকা ভাগবাটোয়ারা পেল স্থানীয় দালালরা। গত শনিবার বিকালে মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী সদরের ইউনাইটেড ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে এসে ডাক্তারের দেয়া মেয়াদ উত্তীর্ণ ইঞ্জেকশনে জহিরের মৃত্যু হয়।


উপজেলার কুরমিরা গ্রামের মহিউদ্দিন হালদার তার পুত্র জহির (৭) কে চিকিৎসা করাতে ইউনাইটেড ক্লিনিকে নিয়ে আসেন। জহিরের পায়ে ছোট টিউমার ধরা পড়লে তাকে ক্লিনিকে ভর্তি করে। ওই ক্লিনিকের ডা. মালেক মুরাদ তাকে ইঞ্জেকশন পুশ করলে সঙ্গে সঙ্গে জহির মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্য ক্লিনিকের মালিক মোশাররফ হোসেন স্থানীয় কেডারদের সহায়তায় শনিবার গভীর রাতে মহিউদ্দিনকে ২ লাখ টাকা দিয়ে বিদায় করে।


টঙ্গীবাড়ী থানার ওসি মো. আ. মালেক ঘটনার সততা স্বীকার করে বলেন, ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ ও মৃতের স্বজনরা বিষয়টি মীমাংসা করে ফেলায় আইনি ব্যবস্থা নেয়া যায়নি। মৃতের পিতা মহিউদ্দিন জানান, ২ লাখ টাকা জরিমানা হলেও সে পেয়েছে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, বাকিটা মধ্যস্থতাকারীরা খেয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ বার্তা