লৌহজংয়ে স্কুল ছাত্রী অপহরন, আহত ৯

kidnapeমুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার খিদিরপাড় উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুল ছাত্রীকে রোববার সকাল ১০ টার দিকে মাইক্রোযোগে জোরপূর্বক তুলে নিলে বখাটেদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হলে স্কুল ছাত্রসহ ৯ জন আহত হয়েছে। পরে পুলিশ স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে। তবে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে বখাটেরা।

আহতদের মধ্যে স্কুল ছাত্র মো: মোবাচ্ছের আদিব, রোহান শেখ, জুলফিকার নাঈম, নাঈম বেপারী, স্কুল ছাত্রীর চাচা আহাজার হোসেন, সিফাত মোল্লা, সিয়াম হোসেন, নাহিদ, সোয়ান তালুকদারকে লৌহজং সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।


জানা গেছে, পার্শ্ববর্তী সিরাজদীখান উপজেলার চম্পকদি গ্রামের মুন্না মিয়ার নেতৃত্বে একদল বখাটে ছাত্রীকে তুলে নিয়ে যায়। পখবর পেয়ে ওই স্কুলের ছাত্ররা বখাটেদের আটকায়। এ সময় মারামারি হলে আহতের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, স্কুল ছাত্রদের সঙ্গে স্থানীয় গ্রামবাসী যোগে দিলে কঠোর প্রতিরোধের মুখে বখাটেরা মাইক্রো ও স্কুল ছাত্রীকে রেখে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ছাত্রীকে উদ্ধার করে। চালকসহ মাইক্রোটি আটক করা হয়।

যমুনা নিউজ
===============

লৌহজংয়ে স্কুল ছাত্রী অপহরন, বখাটের হামলায় আহত ৯

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার খিদিরপাড় উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুল ছাত্রীকে রোববার সকাল ১০ টার দিকে মাইক্রোযোগে জোরপূর্বক তুলে নিলে বখাটেদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হলে স্কুল ছাত্রসহ ৯ জন আহত হয়েছে।

পরে পুলিশ স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে। তবে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে বখাটেরা।

আহতদের মধ্যে স্কুল ছাত্র মো: মোবাচ্ছের আদিব, রোহান শেখ, জুলফিকার নাঈম, নাঈম বেপারী, স্কুল ছাত্রীর চাচা আহাজার হোসেন, সিফাত মোল্লা, সিয়াম হোসেন, নাহিদ, সোয়ান তালুকদারকে লৌহজং সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
জানা গেছে, পার্শ্ববর্তী সিরাজদীখান উপজেলার চম্পকদি গ্রামের মুন্না মিয়ার নেতৃত্বে একদল বখাটে ছাত্রীকে তুলে নিয়ে যায়। পখবর পেয়ে ওই স্কুলের ছাত্ররা বখাটেদের আটকায়। এ সময় মারামারি হলে আহতের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, স্কুল ছাত্রদের সঙ্গে স্থানীয় গ্রামবাসী যোগে দিলে কঠোর প্রতিরোধের মুখে বখাটেরা মাইক্রো ও স্কুল ছাত্রীকে রেখে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ছাত্রীকে উদ্ধার করে। চালকসহ মাইক্রোটি আটক করা হয়।

বিডি টুয়েন্টিফোর
==========

লৌহজংয়ে স্কুলছাত্রী অপহরণকালে বখাটের হামলায় আহত ৯

শেখ মো. রতন: মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার খিদিরপাড় উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুলছাত্রী আঁখি আক্তার (১৪)কে রোববার সকাল ১০টার দিকে মাইক্রোবাসযোগে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে অপহরণ করা হয়েছে।

এ সময় বখাটেদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হলে স্থানীয় বখাটেদের হামলায় স্কুল ছাত্রসহ ৯ জনকে আহত হয়েছে।

খবর পেয়ে স্কুল ছাত্র ও এলাকাবাসী স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে পুলিশে সোপর্দ করে। তবে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে বখাটেরা।

আহতদের মধ্যে স্কুল ছাত্র মো: মোবাচ্ছের আদিব, রোহান শেখ, জুলফিকার নাঈম, নাঈম বেপারী, স্কুল ছাত্রীর চাচা আহাজার হোসেন, সিফাত মোল্লা, সিয়াম হোসেন, নাহিদ, সোয়ান তালুকদারকে লৌহজং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় লৌহজং থানার ওসি আবুল কালাম জানান, পার্শ্ববর্তী সিরাজদীখান উপজেলার চম্পকদি গ্রামের মুন্না মিয়ার নেতৃত্বে একদল বখাটে ছাত্রীকে তুলে নিয়ে যায়। তাৎক্ষণিক খবর ছড়িয়ে পরলে ওই স্কুলের ছাত্ররা বখাটেদের আটকায়। এ সময় বখাটেরা স্কুল ছাত্রদের উপর হামলা চালালে আহতের ঘটনা ঘটে।

স্কুল ছাত্রদের সঙ্গে স্থানীয় গ্রামবাসী যোগ দিলে কঠোর প্রতিরোধের মুখে বখাটেরা মাইক্রোবাস ও স্কুল ছাত্রীকে রেখে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ছাত্রীকে উদ্ধার করে। চালকসহ মাইক্রোবাসটি আটক করা হয়।

সিরাজদিখান উপজেলার ওসি আবুল বাসার জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এটিএনবিডি