ইউপি মেম্বারকে হাসপাতাল থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় গ্রেফতার!

rabশনিবার রাতে সদর উপজেলার শিলই ইউনিয়নের পূর্ব রাখিরকান্দি গ্রামের মৃত হাজী আব্দুল হাই ব্যাপারীর পুত্র এবং শিলই ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হাসেম লিটন ব্যাপারীর অনুজ মো. ইসমাইল ব্যাপারীকে(৪৫) মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আটক করেছে র‌্যাব-১১। হাসপাতালটির জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, রাতে মো. ইসমাইল রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে এসে জানান র‌্যাবের হামলায় সে আহত হয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেওয়ার সময় জরুরি বিভাগ থেকে র‌্যাব সদস্যরা তাকে আটক করে।

এদিকে মো. ইসমাইল ব্যাপারীর আটক নিয়ে এলাকায় চলছে নানা গুঞ্জন। ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হাসেম লিটন ব্যাপারীর জানান, দেওয়ানকান্দি এলাকায় একটি ওরশ চলাকালে রাশেদ (২০) নামে এক ব্যক্তিকে সিভিল পোষাকে র‌্যাব পরিচয়ে ধরে নিয়ে যাচ্ছিল।


এতে লোকজন বাধা দেয়। টানা হেচরার এক পর্যায়ে এলাকার দু’বারের নির্বাচিত মেম্বার ইসমাইল বিষয়টি জানতে চাইলে তাকেও বেধম মারধর করে। এক পর্যায়ে র‌্যাব রাশেদকে(২০) আটক করে নিয়ে চলে যায়। পরবর্তীতে ইসমাইলকে সদর হাসাতালে ভর্তি করলে র‌্যাব-১১ তাকে আটক করে ভাগ্যকূল ক্যাম্পে নিয়ে যায়। এ সময় তার আত্মীয় শাহ জালাল (৩২) নামে আরও একজনকে আটক করে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (রাত সাড়ে ১২টা) আটককৃত তিনজনকে র‌্যাব ক্যাম্পে জিঞ্জাসাবাদ করা হচ্ছিল।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, দেওয়ান কান্দি গ্রামে কয়েকদিন আগে আহসান হত্যা মামলার আসামী প্রধান আসামী গুলিবদ্ধ হয়। এই ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। এই মামলার আসামী রাশেদকে গ্রেফতার করা নিয়ে হট্টগোলের কারণেই র‌্যাব বাকী দু’জনকে আটক করা হয়েছে।

স্বদেশ২৪