গজারিয়ায় নিখোঁজ কনস্টেবলের লাশ উদ্ধার

poice consমুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার মেঘনা সেতুর কাছে জলদস্যুদের সঙ্গে পুলিশের বন্দুকযুদ্ধে নিখোঁজ কনস্টেবল আব্দুল মালেকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার সকালে মেঘনা নদী থেকে নিখোঁজ কনস্টেবল আব্দুল মালেকের লাশটি উদ্ধার করে দমকল বাহিনীর ডুবুরিদল।

মঙ্গলবার রাত সোয়া ২টার দিকে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ ১০ রাউন্ড গুলি ছুড়ে। পুলিশ কনস্টেবল মালেক গুলিবিদ্ধ হয়ে মেঘনায় ডুবে যান। নিখোঁজ কনস্টেবলের সন্ধানে ডুবুরিদল উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে।


একপর্যায়ে ডাকাতরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থল থেকে ডাকাতদের ব্যবহৃত ট্রলার, লুণ্ঠিত মালামাল ও বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

ওসি মামুনুর রশীদ জানান, মঙ্গলবার রাত সোয়া ২টার দিকে টহলরত নৌ-পুলিশের সঙ্গে ডাকাতদের এই বন্দুকযুদ্ধ হয়। পুলিশ ১০ রাউন্ড গুলি ছুড়ে। পুলিশ কনস্টেবল মালেক গুলিবিদ্ধ হয়ে মেঘনায় ডুবে যান। ডাকাতরা গুলিবিদ্ধ হলেও কুয়াশার কারণে ডাকাদের আটক করা যায়নি। নিখোঁজ পুলিশ সদস্যের অস্ত্রটি ইঞ্জিন চালিত নৌকায় রয়েছে।
poice cons
বুধবার সকালে ঢাকা থেকে ডুবুরিদল মেঘনা সেতুর দক্ষিণ পাশে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে বলে তিনি জানান।

ওসি জানান, ডাকতরাও আরেকটি ইঞ্জিন চালিত নৌকায় করে টহল পুলিশের ব্যবহৃত ইঞ্জিন চালিত নৌকায় গুলি ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। ইটপাটকেলে ৩ পুলিশ সদস্য আহত হন। পুলিশের ট্রলারে মোট ৪ পুলিশ সদস্য ছিলেন। তবে ডাকাত দলের সংখ্যা জানা যায়নি। পুলিশ ডাকাদের উপস্থিতি টের পেয়ে ধাওয়া দিলে বন্দুকযুদ্ধ শুরু হয়।

জাস্ট নিউজ