পররাষ্ট্রমন্ত্রী পদে আলোচনায় শিরিন শারমিন

১৫ জন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের জোটগত অবস্থান নিয়ে জটিলতা রয়েছে। এ কারণে দশম জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনের প্রথম দিনে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচন হচ্ছে না। ফলে অনেকটা বাধ্য হয়ে শিরিন শারমিনকে বাদ দিয়ে নতুন কাউকে স্পিকার হিসেবে দেখা যাবে। আর বর্তমান স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরীকে করা হতে পারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি হবেন ডা. দীপু মনির পর দ্বিতীয় নারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী। আর স্পিকার পদে সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরুকে দেখা যেতে পারে।

তবে এ নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের মধ্যে পক্ষে-বিপক্ষে নানা আলোচনা রয়েছে। শেষ পর্যন্ত মতিন খসরুকে স্পিকার করা না হলে এ পদে বিশ্বস্ত কেউ আসতে পারেন। এছাড়াও স্পিকার পদে দীপু মনি, বর্তমান ডেপুটি স্পিকার কর্নেল (অব.) শওকত আলী, সাগুফতা ইয়াসমীন এমিলিসহ অনেকের নাম রয়েছে। অন্যদিকে ডেপুটি স্পিকার পদে সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক আলী আশরাফ এবং বর্তমান চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদের নাম আলোচনায় রয়েছে। সংসদে বিরোধী দলের ভূমিকায় থাকা জাতীয় পার্টিও ডেপুটি স্পিকার পদটি চাইছে।


সেক্ষেত্রে ওই দল থেকেও নির্বাচন করা হতে পারে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, স্পিকার পদে শিরিন শারমিনকে পুননির্বাচিত করার জন্য জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে দ্রুত নির্বাচনের পরিকল্পনা করা হয়; কিন্তু তা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ নারী আসনের নির্বাচনের ক্ষেত্রে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের অবস্থান কি হবে এনিয়ে জটিলতা দেখা দিয়েছে। নির্বাচন কমিশনের এক সিনিয়র কর্মকর্তা জানিয়েছেন, দশম সংসদে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের ১৫ জন স্বতন্ত্র। তারা মূলত আওয়ামী লীগের নেতা। দেখা গেছে, স্বতন্ত্রভাবে বিজয়ী সংসদ সদস্যরা কোন না কোন দলে যোগ দেন। গত সংসদেও চারজন স্বতন্ত্র সদস্যের মধ্যে তিনজন সরকারি দল আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছিলেন। স্বতন্ত্র সদস্যরা তাদের অবস্থান (দলীয় বা জোটগত) স্পষ্ট করতে ২১ কার্যদিবস (গেজেট প্রকাশের পর) সময় পাবেন।

কিন্তু দশম সংসদ ২১ কার্যদিবসের আগেই প্রথম অধিবেশনে বসছে। ফলে অনেকটা বাধ্য হয়ে শিরিন শারমিনকে স্পিকার করা যাচ্ছে না। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ জানান, আমরা সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দলগুলোকে তাদের দল ও জোটভিত্তিক সংসদ সদস্যদের তালিকা দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দিয়েছি। স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদেরও চিঠি দেয়া হয়েছে। আইন অনুযায়ী স্বতন্ত্র সদস্যরা যদি কোন রাজনৈতিক দলে বা জোটে যোগ না দেন তাহলে তারা নিজেরাই কোন স্বতন্ত্র নামে নির্দলীয় জোট গঠন করতে পারবেন এবং জোটের সদস্য সংখ্যার অনুপাতে সংরক্ষিত নারী আসন পাবেন। তারা এই জোট গঠনের জন্য সংসদ নির্বাচনের ফল সরকারি গেজেটে প্রকাশ করার পরবর্তী ২১ কার্যদিবস পর্যন্ত সময় পাবেন।

উল্লেখ্য, সংবিধান অনুযায়ী স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার পদে প্রথম অধিবেশনের প্রথম বৈঠকেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সংসদ সদস্যদের সরাসরি ভোটে তারা নির্বাচিত হন। স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার পদে নির্বাচিত হওয়ার প্রধান যোগ্যতা হলো তাদের ওই সংসদের সদস্য হতে হবে। ওই হিসাবে বর্তমান স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরীর পুনঃনির্বাচিত হওয়ার সুযোগ নেই। কারণ তিনি দশম সংসদের সদস্য নন। ওদিকে মন্ত্রিসভায় নতুন মুখ হিসেবে দুই থেকে তিন জন প্রতিমন্ত্রী নতুন করে নিয়োগ পেতে পারেন। এ তালিকায় সাবের হোসেন চৌধুরীসহ কয়েক জনের নাম শোনা যাচ্ছে।

মানবজমিন