শীতলক্ষ্যায় লঞ্চে ডাকাতদের হামলায় ২০ যাত্রী আহত

ldনারায়ণগঞ্জ-মুন্সীগঞ্জ নৌরুটের শীতলক্ষ্যা নদীতে মুন্সীগঞ্জগামী যাত্রীবাহী লঞ্চে ডাকাতদের হামলায় ২০ যাত্রী আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মদনগঞ্জ লঞ্চ টার্মিনাল সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে রয়েছেন লিটন মিয়া (৩০), জরিনা বেগম (৩৩), শরীফ মিয়া (৫০), মো. ইলিয়াছ (৩৪), শিমু বেগম (২৮), লঞ্চের কেরানী মোবারক (২৭) মাষ্টার মফিজ মিয়া। বাকিদের নাম জানা যায়নি।


লঞ্চ যাত্রী মাহাবুবু মোর্শেদ বাংলানিউজকে জানান, সন্ধ্যায় নারায়নগঞ্জ লঞ্চ টার্মিনাল থেকে ৪০ থেকে ৫০ যাত্রী নিয়ে রিগ্যান এক্সপ্রেস নামে যাত্রীবাহী লঞ্চ মুন্সীগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হয়।
ld
পথিমধ্যে মদনগঞ্জ লঞ্চ টার্মিনাল অতিক্রম করার পর ইঞ্জিনচালিত ট্রলারে করে ১০ থেকে ১২ জনের ডাকাতদল বিভিন্ন অস্ত্রে-সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে লঞ্চটিতে হামলা চালায়।

এ সময় ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে যাত্রীদের জিম্মি করে নগদ টাকা, মোবাইলসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়। বাছেদ খান নামে এক যাত্রীর কাছে থাকা সাড়ে ৩ লাখ টাকা ও তার স্ত্রী রানী বেগমের ৪ ভরি স্বর্নালঙ্কার ছিনিয়ে নিয়ে যায় তারা।

ফারমিন বেগম নামে এক যাত্রীর কাছ থেকে নগদ ৪৭ হাজার টাকা, স্বর্ণের চেইন, কানের দুল ও বাবুল নামে আরেক যাত্রীর কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় ডাকাতরা।

ডাকাতদল যাত্রীবাহী লঞ্চটি মুন্সীগঞ্জে আসতে না দিয়ে চলন্ত অবস্থায় গজারিয়ার মেঘনা নদীর দিকে নিয়ে যায় এবং ডাকাতি শেষে ইঞ্জিনচালিত ট্রলারে করে চলে যায়। পরে লঞ্চটি সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মুন্সীগঞ্জ লঞ্চ ঘাটে পৌঁছে।

এ সময়ের মধ্যে ডাকাতের হামলায় অন্তত ২০ যাত্রী আহত হন।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহীদুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, খবর পেয়ে মুন্সীগঞ্জ থানা পুলিশ লঞ্চঘাট এলাকায় পৌঁছে ডাকাতির খোঁজখবর নিচ্ছেন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

================

মুন্সীগঞ্জের যাত্রীবাহী লঞ্চে দুর্ধর্ষ ডাকতি

শীতলক্ষ্যা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চে দুর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে। এ সময় ডাকাতরা ১০-১২ যাত্রীকে কুপিয়ে সর্বস্থ লুট করে নিয়েছে। তাৎক্ষনিক আহতদের নাম-ঠিকানা জানা যায়নি। তবে, নারায়ণগঞ্জ থেকে গার্মেন্টস মালিকের সঙ্গে মুন্সীগঞ্জে আসার পথে ভোলার তমিজউদ্দিনের কিরণ দাসের ছেলে সুজিত কুমার দাসকে কুপিয়ে ডাকাতরা নগদ ২ লাখ টাকা নিয়ে গেছে। তাকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ছাড়া, অপর আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ডাকাতরা নগদ কয়েক লাখ টাকা লুটে ইঞ্জিনচালিত নৌকা দিয়ে পালিয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মদনগঞ্জের বসুন্ধরা সিমেন্ট ফ্যাক্টরীর সংলগ্ন শীতলক্ষ্যা নদীতে এ ঘটনা ঘটে। লঞ্চটি মুন্সীগঞ্জ লঞ্চঘাটে আসতেছিল। যাত্রীরাও মুন্সীগঞ্জের।


লঞ্চে আগত যাত্রী ইলিয়াস আলী জানান,বৃহস্পতিবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে নারায়ণগঞ্জ লঞ্চঘাট থেকে এমএল রিগ্যাণ নামে একটি লঞ্চ যাত্রী নিয়ে মুন্সীগঞ্জ লঞ্চঘাটে আসছিল। সন্ধ্যার পর নারায়ণগঞ্জের মদনগঞ্জ লঞ্চঘাটে মুন্সীগঞ্জের কোন লঞ্চ ভেরার কথা না থাকলেও সেখানে ভিড়ে। লঞ্চটি মদনগঞ্জ লঞ্চঘাট ছাড়ার পরপরই একটি ট্রলার দিয়ে ১০-১২ জনের একদল ডাকাত লঞ্চে উঠে। তারা লঞ্চে উঠেই লঞ্চের চালককে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে লঞ্চটি সোনারগাঁ উপজেলার মেঘনা নদীর দিকে নিয়ে যায়। এরই মধ্যে ডাকাতরা যাত্রীদের এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। তারা নাম না জানা ৫০ বছর বয়সি এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে আহত করে তার কাছ থেকেই নগদ ২ লাখ টাকা নিয়ে যায়। পরে ডাকাতরা ইঞ্জিতচালিত নৌকা দিয়ে পালিয়ে যায়। লঞ্চটি রাত সাড়ে ৭টার দিকে মুন্সীগঞ্জ লঞ্চঘাটে এসে পৌছে। এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থল আমাদের এলাকায় পরেনি। লঞ্চটি আমাদের ঘাটে আসতেছিল। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

মুন্সীগঞ্জ বার্তা

=========

মুন্সীগঞ্জ-নারায়ণগঞ্জ নৌপথে লঞ্চ ডাকাতি: আহত ২০

শহীদ-ই-হাসান তুহিনঃ নারায়ণগঞ্জ থেকে এমএল রিগান এক্সপ্রেস নামের একটি লঞ্চ মুন্সীগঞ্জে আসার পথে মদনগঞ্জ এলাকায় শীতলক্ষা নদী ডাকাতি সংগঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে এ ডাকতির ঘটনা ঘটে। এসময় ডাকাতদের হামলায় লঞ্চ মাস্টার মোফিজ মিয়া, কেরানী মোবারক(২৭), লিটন মিয়া (৩০), জরিনা বেগম(৩৩), শরীফ মিয়া(৫০) মো. ইলিয়াস(৩৪), সিমু বেগম(২৮)সহ অন্তত ২০ যাত্রী আহত হন।

প্রত্যক্ষদর্শী যাত্রী জানান, একটি ট্রলার যোগে ১০-১২ জনের একটি সশস্ত্র ডাকাত দল লঞ্চে ওঠে অস্ত্রেও মুখে যাত্রীদের কাছ থেকে নগদ টাকা, স্বণালংকার, মোবাইল লুটে নেয়। লঞ্চ চলন্ত অবস্থায় আধা ঘন্টা ধরে ডাকাতি চালানোর পর ডাকাতরা গজারিয়া এলাকায় মেঘনা নদীতে নেমে যায়। পওে রাত পোনে ৮ টার দিকে লঞ্চ মুন্সীগঞ্জ লঞ্চঘাটে ফিরে আসে।
যাত্রী বাসেদ খানের কাছ থেকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা ও তার স্ত্রী রানী বেগমের কাছ থেকে ৪ ভরি স্বর্ণালংকার, ফারমিন বেগমে ৩৪ হাজার টাকা ১ ভরি স্বার্ণালংকার, বাবুল হোসেন ২০ হাজার টাকাসহ অন্তত ৬ লাখ টাকা ডাকাতরা নিয়ে যায়।

টাইমস