টঙ্গীবাড়িতে হারিয়ে যাচ্ছে খেজুর রস

datপ্রকৃতির নিয়ম মেনে এবার ও শীত আসছে। গাছিরা কলসী নিয়ে ছুটছে খেজুর রস সংগ্রহের জন্য। এখন কন কনে শীতের পদদূলী। শীতের সকালে কাঁপা কাঁপা হাতে মুড়ি দিয়ে খেজুর রস পানের দূশ্য মনে দোলা দেয়। তবে এবার বিগত বছর গুলোর তুলনায় খেজুর রসের পরিমান খুবই কম। টঙ্গিবাড়ী উপজেলার ১০ থেকে ১২ গ্রাম সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে যে, খেজুর রস খুবই কম পাওয়া যায়। যা পাওয়া যায় তাও আবার খুব চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে। ক্ষেত্র বিশেষ প্রতি লিটার ৬০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। কিন্তু খাটি খেজুর রস খুব কমই পাওয়া যায়।

স্থানীয়রা জানান, মূলত পদ্মার গর্ভে কয়েকটি গ্রাম বিলিন হওয়ার কারনে এবং অনেকে খেজুর গাছ কেটে বসতবাড়ী নির্মান করার ফলে খেজুর রস কম পাওয়া যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, একটি অসাধু চক্র রং ও ধানের কুটো ভিজানো পানি খেজুর রসে মিশিয়ে বাজারে বিক্রি করে। যা মানব দেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই এই বিষয়ে আমাদের সাবধান হওয়া উচিত।

মুন্সিগঞ্জ টাইমস