কলমিলতায় কাদের মোল্লার লাশ পাড়ি

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মাওয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটের ফেরি ‘কলমিলতায়’ পদ্মা পাড়ি দেয় কাদের মোল্লার লাশ। কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে সরাসরি ঢাকা মাওয়া মহাসড়ক হয়ে কাদের মোল্লার লাশ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টা ১৩ মিনিটে মাওয়া ফেরিঘাট এসে পৌঁছে।

রাত ১১টা ৪১ মিনিটে মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী ব্রিজে স্থানীয় প্রশাসন মরদেহ গ্রহণ করে। এসময় লাশের বহরে ২টি অ্যাম্বুলেন্স, পরিবারের লোকজন, যৌথবাহিনীর গাড়ি ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার যানবাহন ছিল। রাত ১২ টা ২৮মিনিটে পর কাদের মোল্লার লাশ নিজ গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের সদরপুরের আমিরাবাদ গ্রামে যাওয়ার উদ্দেশ্যে মাওয়া ঘাট ত্যাগ করে ফেরিটি।

এর আগে পদ্মা পারাপারের জন্য মাওয়ায় প্রস্তুত করে রাখা হয় ফেরি কলমিলতা। রাত ১০টা থেকেই দু’ঘণ্টাব্যাপী বিআইডব্লিউটিসির ‘কে’ টাইপ এ ফেরিটি মাওয়া ২নং ঘাটে অপেক্ষা করতে থাকে। তবে আগে থেকেই স্থানীয় প্রশাসন ফেরিটি পরিদর্শন করে গেলেও মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. হাবিবুর রহমান, একজন ম্যাজিস্ট্রেটসহ প্রশাসনের বিপুল সংখ্যক কর্মকর্তা ফেরিতে, ঘাটে এবং মাওয়া চৌরাস্তায় অবস্থান নেয়। এছাড়া আগে থেকেই ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়।

এদিকে কাদের মোল্লার লাশ মাওয়া ২নং ফেরিঘাটে এসে পৌঁছার আগ থেকেই ঘাটের ফেরি পারাপারের যাত্রীবাহীসহ বিভিন্ন যানবাহন লোড আনলোড বন্ধ রাখা হয়। ২নং ঘাটের রাস্তা সাধারণের জন্য সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়। এসময় কাওড়াকান্দি থেকে আসা একটি ডাম্পু ফেরি পন্টুনে ভেড়ানো থাকে।


মুন্সীগঞ্জ জেলা কারাগারে সর্বোচ্চ সতর্কতা : এদিকে কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরে নাশকতার আশঙ্কায় মুন্সীগঞ্জ জেলা কারাগারে কৃহস্পতিবার রাতে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করে কারা কর্তৃপক্ষ।

কারাবন্দি ও হাজতিদের তীক্ষ্ণ নজরদারিতে রাখা হয়। কারাগারজুড়ে নিরাপত্তা জোরদারের সত্যতা নিশ্চিত করেন জেল সুপার আনোয়ারুল করীম।

তিনি জানান, কারা অভ্যন্তরে ও বাইরে সমান নজরদারি করা হয়। কাদের মোল্লার ফাঁসিকে ঘিরে জেলা কারাগারে বন্দি ও হাজতিদের মাঝে কোন প্রভাব পড়েনি বলে জানান তিনি।

এমটিনিউজ২৪