শ্রীনগরে খাদ্য গুদামে পাচারের ২৩০ বস্তা সার আটক

hamla1সাংবাদিকের ওপর হামলা
আরিফ হোসেন: মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শ্রীনগর উপজেলার বেজঁগাঁও সরকারি খাদ্য গুদাম থেকে সার পাচারের সময় ট্রাকসহ সার হাতে নাতে আটক করা হয়েছে। এসময় স্থানীয় সাংবাদিকরা ছবি তোলতে গেলে পাচারকারীরা সাংবাদিকের ওপর হামলা করে। এতে শ্রীনগর প্রেসক্লাবের সভাপতি নজরুল ইসলাম আহত হয়। পরে পুলিশ ২শ’৩০ বস্তা সারসহ ট্রাকটি জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে। ট্রাকের হেলপারকে ১শ’ গ্রাম গাজাসহ গ্রেফতার করলেও ট্রাক চালক ও পাচারকারীরা পালিয়ে গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, সার পাচারের খবরে তাৎক্ষনিক তথ্য সংগ্রহ করতে যান শ্রীনগর প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সংবাদ প্রতিনিধি নজরুল ইসলাম ও যুগান্তর প্রতিনিধি মো. আওলাদ হোসন। এই সময় পাচারকারী ইয়াহিয়া সাংবাদিকদের দেখেই ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে । এসময় তার সঙ্গীরা শারিরিক ভাবে সাংবাদিকদের উপর নির্যাচন চালায়। পুলিশ খবর পেয়ে সাংবাদিকদের উদ্ধার করে ও সারগুলো জব্দ করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। ট্রাকের হেলপার সুমন জানায় সারগুলো যশোরের নোয়াপাড়া থেকে শ্রীনগর এনে রাখা হয়।এখান থেকে সেগুলো নারায়নগঞ্জে নেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছিল।


শ্রীনগর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মকবুল হোসেন জানান, সারগুলো এই অঞ্চলের কোন ডিলারের নয়। কোথা থেকে এখানে আসলো এবং ভেজা সার কিনা তা নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক গোলাম মাওলা জানান, সরকারী খাদ্য গুদামে সার থাকা বিস্ময়কর ঘটনা। তবে কিভাবে সার আসলো তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। খাদ্য গুদামটির ইনচার্জ শাহিন আফজাল জানান, তিনি ছুটি থেকে এসে মঙ্গলবারই দেখতে পান গুদাম প্রাঙ্গণে কিছু সারের বস্তা। তিনি এগুলো দ্র্রুত সরিয়ে নিতে বলেন। তবে সারগুলো গুদামের ভেতরে ছিল না বলে তিনি দাবী করেন।

শ্রীনগর থানার ওসি শেখ মাহবুবুর রহমান জানান, সাবির্ক বিষয়ে পৃথক ৩টি মামলার প্রক্রিয়া চলছে। গুদামের ভেতরে আরও সার আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হবে।

এদিকে সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং বিক্রমপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি নিন্দা জানিয়ে দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছেন।