অকাল প্রেমের টানে নাকাল জীবন!

aaaMunshigonjব.ম শামীম: মাত্র ১৩ বছর বয়সে সহপাঠির প্রেমে পরে ঘর ছেড়ে উধাও হয়ে অপহরণ মামলার আসামী হয়ে নাকাল হয়ে গেছে সাব্বির এর জীবন। সোনারং বহুমূখী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র সাব্বির এর সাথে সহপাঠি এক ছাত্রীর নবম শ্রেণীত অধ্যায়নরত অবস্থায় প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত প্রায় দেড় বছর পূর্বে প্রেমের টানে ঘর ছাড়ে তারা। এ ঘটনায় সহপাঠীর মেয়ের মা টঙ্গীবাড়ী থানায় অপহরণ ও নারী নির্যাতন মামলা দায়ের করলে পুলিশ সাব্বির এর বড় ভাই শ্যামলকে গ্রেফতার করে। পরে সাব্বিরকে জানানো হয়, সে তার সহপাঠী প্রেমিকাকে পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দিলে তার ভাইকে ছেড়ে দেওয়া হবে।


এতে সাব্বির তার প্রেমিকাকে নিজ বাড়িতে পাঠিয়ে দিলেও পুলিশ উক্ত মামলায় তার ভাই এবং পিতা মেছের বেপারীকে জেল-হাজতে প্রেরণ করে। পরে দির্ঘদিন কারাবাসের পর জামিনে মুক্তি পায় তারা। এরপর উক্ত সহপাঠী গত প্রায় ১বছর পূর্বে সাব্বিরদের বাড়িতে পালিয়ে চলে আসে। পরে স্থাণীয় শালিশীগন, মামলা উঠিয়ে নেওয়ার শর্তে রফাদফা করে সাব্বির এর প্রেমিকাকে তার অভিবাবকদের হাতে তুলে দেন। লোকলজ্জার ভয়ে সাব্বির লেখাপড়া ছেড়ে কম্পিউটার প্রশিক্ষন দেওয়ার জন্য বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে যান।

সাব্বির জানান, তারপরও প্রায় তার কাছে ফোন করতো উক্ত সহপাঠি। সে বিষয়টি তার সহপাঠির মাসহ অন্যান্য অভিবাবকদে অবহিত করেছেন। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করার কথা থাকলেও তা প্রত্যাহার না করায় সাব্বির এর বিরুদ্ধেও ওয়ারেন্ট জারি করে আদালত। ১০ই ডিসেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে তাকেও গ্রেফতার করে পুলিশ। অপরিপক্ক প্রেমের প্রতিফলনে লেখাপড়া ছেড়ে দিয়ে অন্যত্র চলে গিয়েও নিস্তার হলোনা সাব্বিরের।