মুন্সীগঞ্জে ১৫টি মনোনয়নপত্রের মধ্যে মাত্র ৭টি বৈধ!

মুন্সীগঞ্জের তিনটি আসনে মোট ১৫টি মনোনয়নপত্রের মধ্যে ৭টি বৈধ হয়েছে। এর মধ্যে মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির অ্যাডভোকেট মৃনাল কান্তি দাসের মনোনয়নপত্র বৈধ ছাড়া সবকটি মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।

এর ফলে মৃনাল কান্তি দসের বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচি প্রায় নিশ্চিত হয়ে যায়। আজ বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই কালে রিটার্নিং অফিসার জেলা প্রশাসক মোঃ সাইফুল হাসান এ ঘোষনা দেন।

এ আসনে জাতীয় পার্টির আলহাজ্ব মোঃ কলিম উল্লাহর ১ লাখ ৭৮ হাজার টাকা গ্যাস বিল বকেয়া এবং আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের ছেলে যুলীগ নেতা ফয়সাল বিপ্লবের দাখিল করা ১ ভাগ স্বক্ষর করা ভোটারের সত্যতা না পাওয়া যাওয়ায় তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যায়।

এছাড়া জাপার অপর প্রার্থী আব্দুল বাতেন দলীয় মনোনয়নের চিঠি ফটোকপি দাখিল এবং দল থেকে বহিস্কার করায় মনোনয়নপত্র বাতিল করে দেন রিটার্নিং অফিসার।

মুন্সীগঞ্জ-১ আসনে ৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করছে এর মধ্যে আওয়ামী লীগের সুকুমার রঞ্জন ঘোষ, জাতীয় পার্টির অ্যাডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, এবং জাসদের অ্যাডভোকেট নাসিরুজ্জামান খানের মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে। জেপির প্রার্থী নুর মোহাম্মদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যায়।

মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে ৫ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করে এর মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি স্বতন্ত্র প্রার্থী এসপি মাহবুব উদ্দিন আহমেদ বীর বিক্রম এবং খেলাফত মজলিসের আব্দুল ওয়াদুতের মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে। জাতীয় পার্টির নোমান মিয়া ও বিএনএফ এর বাচ্চু শেখের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যায়।

মুন্সীগঞ্জ টাইমস
================

মুন্সীগঞ্জে ৭ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

মুন্সীগঞ্জে ৩টি আসনে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৭ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রাথমিকভাবে বাতিল করেন নির্বাচন অফিস। বৃহস্পতিবার যাচাই বাছাই শেষে জেলা নির্বাচন অফিস ঋন ও বিল খেলাপের দায়ে এই ৭ প্রার্থীর মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনে ৬ প্রার্থী মধ্যে ৫ প্রার্থীরই মনোনয়ন বাতিল হয়ে যায়। ফলে একমাত্র অওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী মৃনাল কান্তি দাসের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় বিজয়ী হওয়ার সম্ভবনা দেখা দিয়েছে।

এছাড়া মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে ২ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়ে যায়। জেলায় ৩টি আসনে ১৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন।

এসব তথ্য দিয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার ফয়সাল কাদের জানান মুন্সীগঞ্জ- ৩ (সদর-গজারিয়া) আসনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসাবে হাজী মো. ফয়সাল বিপ্লব, জাতীয় পার্টির প্রার্থী আলহাজ কলিমুল্লাহ, জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল বাতেন, জেপি প্রার্থী প্রার্থী নাজমুন্নাহার বেবী, বিএনএফ’র সৈয়দ মোখলেছুর রহমানের ঋন ও বিল খেলাপের দায়ে আপাতত মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

তবে জটিলতার কারণে বাতিল হওয়া মনোনয়ন পত্রগুলো আরো ভালভাবে যাচায়-বাছাই করে দেখা হচ্ছে। যারা যাচাই বাছাইয়ে বাতিল হয়েছে তাদের আপিল করার সুযোগ রয়েছে। এ কারণে শতভাগ নিশ্চিত না হয়ে অনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষনা দিচ্ছেনা জেলা নির্বাচন অফিস।

এই আসনের একমাত্র আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী মৃনাল কান্তি দাসের মনোনয়ন বৈধ ঘোষনা করা হয়েছে। এছাড়া একই কারণে মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে জাতীয় পার্টির নোমান মিয়া ও বিএনএফ’র বাচ্চু শেখের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

এই আসনের অপর ৩ প্রার্থী আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী জাতীয় সংসদের হুইপ ও বর্তমান সাংসদ সাগুফতা ইয়সমিন এমিলি, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসাবে মাহবুব উদ্দিন আহম্মেদ বীর বিক্রম ও খেলাফত মজলিসের মো. আব্দুল ওয়াদুদের মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষনা করা হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ-১ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন ৪ প্রার্থী। যাচাই বাছাইয়ের পর এদের সবারই মনোনয়নই বৈধ বলে ঘোষনা দেন নির্বাচন অফিস।

এরা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান সাংসদ সুকুমার রজ্ঞন ঘোষ, জাতীয় পার্টির এ্যাডভোকেট শেখ মো. সিরাজুল ইসলাম, জেপি প্রার্থী নুর মোহাম্মদ ও জাসদের (ইনু) একেএম নাসিরুজ্জামান খান।

বাংলাপোষ্ট২৪

==================

মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের জাতীয় পার্টির প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল

মুন্সীগঞ্জ-২(লৌহজং-টঙ্গীবাড়ি) আসনের জাতীয় পার্টির প্রার্থী নোমান মিয়ার মনোনয়োন পত্র বাতিল হয়ে গেছে। তিনি এ আসনে জাতীয় সংসদের হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলির প্রতিদ্বন্দ্বি হিসেবে জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন পত্র দাখিল করে ছিলেন।

উপজেলা সহকারী রিটানিং অফিসার ও লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. খালেকুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ঋণ খেরাপির কারণে জাতীয় পার্টির প্রার্থী নোমান মিয়ার মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

এ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন মোট ৫ জন। বাকীরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী জাতীয় সংসদের হুইপ ও বর্তমান সাংসদ সাগুফতা ইয়সমিন এমিলি, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসাবে মাহবুব উদ্দিন আহম্মেদ বীর বিক্রম, খেলাফত মজলিসের মো. আব্দুল ওয়াদুদ ও বিএনএফ’র বাচ্চু শেখ।

মুন্সীগঞ্জ টাইমস
=====================