নির্বোধ কমিশনই দায়ী থাকবে

bcবিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, তফসিল ঘোষণার ফলে সারাদেশে প্রতিবাদ থেকে প্রতিরোধের দাবানল জ্বলে উঠেছে। এর জন্য বর্তমান সরকার ও নির্বোধ নির্বাচন কমিশনই দায়ী থাকবে।

এ সময় তিনি একতরফা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার নিন্দা জানিয়ে জনগণকে একযোগে সারাদেশে প্রতিবাদ এবং প্রতিরোধ কর্মসূচি গ্রহণের আহ্বান জানান।

সোমবার রাতে এক বিবৃতিতে এসব বলেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, এই নির্বাচন কমিশন মোটামুটি কম বুদ্ধির লোক দিয়ে গঠিত হয়েছিল তা আগেই বোঝা গিয়েছিল। আমরা বার বার সরকার ও নির্বাচন কমিশনকে রাজনৈতিক সমঝোতার আগে তফসিল ঘোষণা না করতে অনুরোধ ও দাবি জানিয়েছিলাম। কিন্তু তারা তফসিল ঘোষণা করে যা করলেন, এর ফলে সারাদেশে প্রতিবাদ থেকে প্রতিরোধের দাবানল জ্বলে উঠেছে। এর জন্য বর্তমান সরকার ও নির্বোধ নির্বাচন কমিশনই দায়ী থাকবে।


বি. চৌধুরী বলেন, নির্বাচন কমিশনের সরকারকে বলা উচিত ছিল নির্বাচনে সব দলের জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করুন। তাদের আরও বলা উচিত ছিল, রাজনৈতিক সমস্যা শুধু রাজনীতির মাধ্যমেই সমাধান করা উচিত, গায়ের জোরে নয়। সুতরাং এই নির্বাচন কমিশন জেনে-শুনেই দেশকে এক গভীর সঙ্কটের মধ্যে ঠেলে দিল। এর জন্য ইতিহাস তাদের কোনোদিনই ক্ষমা করবে না।

তিনি বলেন, এই সংকটের কারণে দেশে যত প্রাণহানি, অগ্নিসংযোগ এবং সম্পদহানি হবে তার জন্য তাদের বিবেকের কাছে চিরকাল দায়ী থাকতে হবে। এ ছাড়া এর ফলে দেশে যদি কোনো অসাংবিধানিক সরকার আসে তা হলে এর দায়দায়িত্বও এই সরকার ও নির্বাচন কমিশনকেই বহন করতে হবে।

সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, এই অবিমৃষ্যকারিতার জন্য আমি সরকার ও নির্বাচন কমিশনের প্রতি তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। আমি আশা করি জনগণ একযোগে সারাদেশে প্রতিবাদ এবং প্রতিরোধ কর্মসূচি গ্রহণ করবে।

তিনি বলেন, এই সরকারকে দেশে-বিদেশের যারাই ভুল উপদেশ দিয়েছেন তারা মোটেও ভালো কাজ করেন নাই, আগামী দিনের ইতিহাস তাই বলবে।

এমটিনিউজ২৪