সিনথিয়া আত্মহনন মামলায় বখাটের ১০ বছরের কারাদণ্ড

Munshiganj-jahangir-bg20131121142942মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরের বাড়ৈখালী এলাকায় চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী সিনথিয়া আক্তার (১৫) আত্মহনন মামলায় বখাটে জাহাঙ্গীর শেখকে ১০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। এছাড়া রায়ে জাহাঙ্গীর শেখকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে জেলা অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক শাহজাহান কবীর এ রায় দেন।


এদিকে, এ মামলায় জাহাঙ্গীর শেখের বাবা জামাল শেখ ও ভাই জাকির শেখকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।
Munshiganj-jahangir-bg20131121142942
উল্লেখ্য, বাড়ৈখালী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী সিনথিয়া আক্তারের নামে কুৎসা রটনা ও বিভিন্নভাবে তাকে হয়রানি করতেন জাহাঙ্গীর। এর জের ধরে ২০১০ সালের ১১ আগস্ট নিজেদের বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহননের পথ বেছে নেয় সিনথিয়া। এ ঘটনায় এর পরদিন সিনথিয়ার চাচা রুস্তম আলী বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। স্থানীয় লোকজন ও শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে ১২ আগস্ট দিনগত রাতে পুলিশ জাহাঙ্গীরকে গ্রেফতার করে।

এনিয়ে মুন্সীগঞ্জ ছাড়াও দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি হলে ঘটনার ৩ দিন পর শ্রীনগরের বাড়ৈইখালী গ্রামে ও বিদ্যালয়ে ছুটে এসেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। পরে শিক্ষামন্ত্রী বাড়ৈখালী উচ্চ বিদ্যালয়ে সিনথিয়ার নামে একটি ভবন উদ্বোধন করেন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

===============

আত্মহত্যায় প্ররোচনার দায়ে কারাদণ্ড

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী হাসনা রহমান সিনথিয়া আত্মহনন মামলার প্রধান আসামি জাহাঙ্গীর শেখকে (২৮) ১০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

এ ছাড়া ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করা হয়। একই সাথে মামলার অপর দুই আসামি বখাটে জাহাঙ্গীরের ভাই জাকির হোসেন (৩৪) ও বাবা জামাল শেখকে (৫৭) বেকসুর খলাস দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত দায়রা জজ, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রইবুনাল-২ এর বিচারক মো. শাহজাহান কবিরের আদালত আসামিদের উপস্থিতিতে এ রায় প্রদান করেন।

বখাটে জাহাঙ্গীরের যৌন হয়রানির কারণে বাড়ৈখালী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী হাসনা রহমান সিনথিয়া ২০১০ সালের ১১ আগস্ট রাত ৮টার দিকে ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এ ঘটনায় পরদিন বিকেল ৩টার দিকে সিনথিয়ার চাচা রোস্তম আলী বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় মামলা দায়ের করেন।

এর আগে বখাটে জাহাঙ্গীর শেখ স্কুলে আসার যাওয়ার পথে সিনথিয়াকে উত্যক্ত আসছিল। আত্মহত্যার কয়েক ঘণ্টা আগে ২০১০ সালের ১১ আগস্ট দুপুরে স্কুলের শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির কাছে জাহাঙ্গীর ও তার বাবা জামাল শেখ অঙ্গীকার করে আসে সিনথিয়াকে আর উত্যক্ত করা হবে না। কিন্ত সিনথিয়া রাত ৮টার দিকে রাগে-ক্ষোভে ও সম্মানহানির কারণে আত্মহত্যা করে।

ওই বছরের ১২ আগস্ট রাতেই পুলিশ বখাটে জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার করে। এরপর বাড়ৈখালীর শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা রাজপথে নেমে আন্দোলন শুরু করেন। ঘটনার পর শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ নিহত সিনথিয়ার বাড়ি ও স্কুলে ছুটে যান। এরপর সিনথিয়ার নামে স্কুলের একটি ভবন উদ্ধোধন করা হয়।

এদিকে, আদালত ২৩ জনের স্বাক্ষী গ্রহণের পর দীর্ঘ শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে এ রায় প্রদান করেন। সরকার পক্ষে চাঞ্চল্যকর এ মামলাটি পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট অজয় চক্রবর্তী ও এপিপি সুলতানা আক্তার বিউটি। আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন-জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান।

এমটিনিউজ২৪