মাওয়ায় পুলিশের ইনফর্মার গুরুতর আহত

xchuri20131106101857.jpg.pagespeed.ic_.50o636h6sqমুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার মাওয়ায় পুলিশের সোর্স মো: সুমন খান (৩২) কে মাদক সম্রাটর মোঃ কামরুল ইসলাম প্রিন্স রাম দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে। মুমুর্ষ অবস্থায় সুমনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে এখন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম জানান, উপজেলার দক্ষিণ মেদিনী মন্ডল গ্রামের মৃত আব্দুল মালেক খানের পুত্র মো: সুমন পুলিশের ইনফর্মার হিসেবে কাজ করতো।


মাওয়া এলাকার মাদক সরদার দক্ষিণ মেদিনি মন্ডল গ্রামের মো: খোকা মিয়ার পুত্র মোঃ কামরুল ইসলামকে ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ গ্রেপ্তার করতে মো: সুমন পুলিশকে একাধিকবার সহযোগিতা করে। গত ৪ মাস আগে কামরুলকে ইয়াবাসহ ধরিয়ে দেয় মো: সুমন শেখ। গ্রেপ্তারের কিছু দিন পরই কামরুল আদালতের মাধ্যমে জামিনে মুক্তি লাভ করে। এরপর থেকে কামরুল সুমন শেখকে নানাভাবে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছিল। গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ১০ টার সময় মাওয়া ঘাট এলাকায় সুমনকে একা পেয়ে কামরুল ও তার সঙ্গীয়রা রামদা ও ছোরা দিয়ে সুমনের উপর অতর্কিত আক্রমন চালায়। রামদা ও ছোরার উপর্যুপুরি কোপে মারাত্মকভাবে জখম হয় সে। সুমন শেখের চিৎকারে আশপাশ থেকে লোকজন ছুটে এল মাদক সম্রাট কামরুল ইসলাম প্রিন্স তার সঙ্গীদের নিয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থল থেকে অন্যত্র পালিয়ে যায়।


ওই সময় এলাকাবাসী মুমুর্ষ অবস্থায় সুমনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করায়। সুমন এখন ঢাকা ম্যাডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এব্যাপারে আরো জানায় লৌহজং থানায় একটি মামলা রজু করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে মনির ও মনা নামে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হলেও ঘটনার সাথে সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তবে মূল আসামীদের ধরতে পুলিশ তৎপরতা চলিয়ে যাচ্ছে।

এবিএন