লৌহজংয়ে ৮ মাস ধরে বাগানে চাটি বিছিয়ে চলছে শিক্ষার্থীদের ক্লাশ

kanaksarভবনটি ফাটল ধরায় পরিত্যাক্ত ঘোষনা করা হয়েছে এ কারন দেখিয়ে লৌহজংয়ের কনকসার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তিনটি ক্লাশ রুম বন্ধ প্রায় ৮ মাস ধরে। মাথাব্যাথা নেই স্কুল কতৃপক্ষের ও শিক্ষা অফিসের। আট মাস ধরে চলছে চিঠি চালাচালি আর ভুক্তভোগি হচ্ছে কোমল মোতি শিক্ষার্থীরা। বৃষ্টিতে ভিজে আর রোদে শুকিয়ে কনকসার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেনীর ১২০ জন শিক্ষার্থীকে প্রতিনিয়ত ক্লাশ করতে হচ্ছে খোলা আকাশের নিচে।


শিশু শ্রেনীর শিক্ষার্থী নাদিয়ার অভিভাবক রুনা বেগম জানান, বৃষ্টির কারনে ক্লাশ বন্ধ থাকে প্রায় দিন আবার রোদের কারনে অনেকে অসুস্থ্য হয়ে পরে, তাছারা খোলা আকাশ থাকায় গাছে বসে পাখিরা মল ত্যাগ করে বিছানা ও বই পএ নষ্ট করে দেয়। অভিভাবক মুক্তা দাশ জানান, যে বাগানে ক্লাশ করা হয় তার পাশেই একটি পুকুর রয়েছে । যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। সামনে বার্ষিক পরীক্ষা চাটি বিছিয়ে পরীক্ষা দেয়া সম্ভ্ নয়।
kanaksar
প্রধান শিক্ষক সারমিন সুলতানা জানান, গত এপ্রিল মাসে স্কুলের একটি ভবনে ফাটল দেখা দিলে শিক্ষা অফিসারকে বিষয়টি জানানো হলে উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার ও শিক্ষা কর্মকর্তা স্কুল পরিদর্শন শেষে ফাটলকৃত ভবনটি পরিত্যাক্ত ঘোষনা করেন। ক্লাশ রুমের সংকটের কারনে বিকল্প একটি টিনসেট ঘর তৈরী করা হলেও ক্লাশ রুমের সংকট কাটেনী। ভবনের তিনটি রুম অকেজো হয়ে পড়ায় শিক্ষার্থীদের খোলা আকাশের নিচে বাগানে বসে ক্লশ করতে হচ্ছে।

এই বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী রাশেদের সাথে কথা হলে তিনি জানান, ফাটলকৃত ভবনটির বিষয়ে উপরে চিঠি লিখা হয়েছে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাংলাপোষ্ট২৪