ককটেল বিস্ফোরণ ও গাড়ী ভাংচুরের মধ্যদিয়ে দ্বিতীয় দিনের হরতাল পালিত

hartalমুন্সীগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ ও গাড়ী ভাংচুরের মধ্যদিয়ে ৬০ ঘন্টা হরতালের দ্বিতীয় দিন পালিত হয়েছে। সোমবার ভোর থেকেই জেলার বিভিন্ন স্থানে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের পিকেটিং করতে দেখা গেছে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ভোরে শহরের পিটিআইয়ের মোড়ে পিকেটাররা ৩টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এর পরপরই জুবলী রোড ও সরকারী হরগঙ্গা কলেজ ছাত্রাবাসের সামনে ৪টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে।

সকালে মুক্তারপর নিপ্পন কোল্ড স্টোরেজের সামনে ৪টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় পিকেটাররা।

এসময় তারা ঢাকা-মুক্তারপুর সড়কে টায়ারে অগ্নিসংযোগ করে রাস্তায় আটকে দেয়।


সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রামপালের সিপাহীপাড়া এলাকা থেকে সদর থানা স্বেচ্ছাসেবকদলের সভাপতি মিলন ঢালী, সাধারণ সম্পাদকের রফিকুল ইসলাম ইকবাল ও সাংগঠনিক সম্পাদক দিদার হোসেন নেতৃত্বে পুলিশ পাহাড়ায় একটি মিছিল মুক্তারপুরে আসলে জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাই যোগ দেন।

বিশাল মিছিলটি মুক্তারপুর থেকে মুন্সীগঞ্জ শহরস্থ পার্টি অফিসে এসে শেষ হয়। পরে এখানে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ হয়।

এসময় বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাই, পৌর মেয়র ও শহর বিএনপি’র সভাপতি এ.কে.এম. ইরাদত মানু, জেলা বিএনপি’র যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আতোয়ার হোসেন বাবুল, শহর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, বিএনপি নেতা মোহাম্মদ আলী লিটন প্রমুখ।

এদিকে, শহরের কাচারী এলাকায় অবস্থান নিয়েছে আওয়ামীলীগ। সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিনসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ।

ঢাকা–মাওয়া মহাসড়কের সিরাজদিখান উপজেলার নিমতলা পয়েন্টে বেশ কয়েকটি ককটেল ও গাড়ী ভাংচুর করে পিকেটাররা।

তার পরপরই অবস্থান সেখানে অবস্থান নেয় সিরাজদিখান আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। এছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গজারিয়ার বিভিন্ন পয়েন্টে বিএনপি নেতাকর্মীরা পিকেটিং করছে বলে জানা গেছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম জানান, শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

মুন্সীগঞ্জ নিউজ
==========

মুন্সীগঞ্জে দ্বিতীয় দিনের হরতাল পালিত : ককটেল বিস্ফোরণ ও অটোরিক্সা ভাংচুর

বিএনপির ডাকা ৬০ ঘন্টা হরতালের দ্বিতীয় দিনে মুন্সীগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে সকাল থেকে ককটেল বিস্ফোরণ ও গাড়ী ভাংচুর করার মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে হরতাল। আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৮ টা হতে দুপুর পর্যন্ত মুন্সীগঞ্জ শহর, শহরের উপকন্ঠ ও জেলার সিরাজদীখানে একের পর এক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় পিকেটাররা।


শহরের পিটিআই মোড়, সরকারী হরগঙ্গা কলেজ রোড ও পঞ্চসার ইউনিয়নের উপকন্ঠ মিরেরশ্বরাই ও মুক্তারপুর নিপ্পন কোল্ড স্টোরেজ এলাকার সড়কে বিক্ষুব্ধ পিকেটাররা ১১ টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছেন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম।
মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলার ঢাকা চট্টগ্রাম হাইওয়ে মহাসড়কে বিভিন্ন পয়েন্টে বিএনপির নেতাকর্মীরা হরতালের সমর্থনে পিকেটিং করছে বলে জানা যায়। মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদীখান উপজেলার নিমতলী এলাকায় ৪ টি ককটেল বিস্ফোরণ ও ২ টি যাত্রীবোঝাই অটোরিক্সা ভাংচুর করা হয়েছে বলে সিরাজদীখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাসার জানান। এছাড়াও সিরাজদীখানের কুচিয়ামাড়া এলাকায় আরো ২ টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে।

এবিনিউজ
======