মানহানির মামলায় জাপান প্রবাসী সাংবাদিক রাহমান মণি নির্দোষ প্রমাণিত

moniজাপান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধিত সাংবাদিক, সাপ্তাহিক টোকিও প্রতিনিধি রাহমান মণি (রাহমান মোঃ মোখলেসুর)’র বিরুদ্ধে ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে জাপানীজ পাসপোর্টধারী জনৈক বাংলাদেশী সাকরা সাবের কর্তৃক দায়েরকৃত মানহানির মামলাটি জাপান আদালত খারিজ করে দিয়েছে। দীর্ঘ প্রায় দুই বছর উভয় পক্ষের যুক্তি-তর্ক শেষে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত ২১ অক্টোবর মামলাটি খারিজ করে দেয়।

সাকুরা সাবেরের পক্ষে আদালতে মোট তিন জন আইনজীবী মামলাটি পরিচালনা করেন। পক্ষান্তরে রাহমান মণি কোন আইনজীবী নিয়োগ না নিয়ে নিজেই মামলাটি মোকাবেলা করেন। তাকে সহযোগিতা করেন জনাব নিয়াজ আহমেদ জুয়েল। এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক সংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দ এবং সর্বস্তরের প্রবাসীরা বিভিন্ন তথ্য , উপাত্ত দিয়ে সব ধরণের সহায়তা করেন।

উল্লেখ্য,১৪ এপ্রিল টোকিও থেকে পরিচালিত উয়ের পোর্টাল http://www.community-skynetjp.com-এ ‘বন্ধ হউক এই সব নোংরা আত্মপ্রচার’ এবং ১৭ আগস্ট ২০১১ বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত জাতীয় সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন সাপ্তাহিক এ ‘জাপান আওয়ামীলীগের আসন্ন নির্বাচন এবং প্রবাসীদের প্রত্যাশা’ শিরোনামে পৃথক পৃথক দুটি লেখা প্রকাশিত হলে সাকুরা সাবের কোনরূপ প্রতিবাদ না করে প্রায় এক বছর পর রাহমান মণির বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন। অভিযোগে তিনি ১৫,০০,০০০(পনের লাখ) ইয়েন বা প্রায় ১২ লাখ টাকা ক্ষতিপূরন দাবি করেন।

যদিও প্রথম থেকেই রাহমান মণি তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন। তাছাড়াও প্রতিবেদনের কোথাও সাকুরা সাবেরের নাম বা তার প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ নেই। এছাড়াও প্রতিবেদন প্রকাশের পর সাকুরা সাবের বা তার পক্ষ থেকে কোন প্রকার প্রতিবাদ পাঠাননি এবং নিয়মতান্ত্রিক কোন পথই অনুসরণ না করে সরাসরি মামলা দায়ের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং অযথা হয়রানি ছাড়া কিছুই নয় বলে রাহমান মণি বলে আসছেন।

আদালত তার রায়ে অভিযোগের স্বপক্ষে বাদী পক্ষ তথ্য প্রমাণ উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হয়েছে বলে উল্লেখ করে। পক্ষান্তরে বিবাদী তার প্রতিবেদনের স্বপক্ষে যথেষ্ট তথ্য প্রমাণ উপস্থাপন করতে সক্ষম হয়েছেন। প্রতিবেদন দুটি ছিল বস্তুনিষ্ঠ। তাই বাদী সাকুরা সাবের কর্তৃক বিবাদী রাহমান মণির বিরুদ্ধে আনা ১৫,০০,০০০ এর মানহানি মামলা খারিজ করে দেয়া হয়েছে।

অযথা হয়রানির অভিযোগে বর্তমানে রাহমান মণি ক্ষতিপূরন আদায়ে উচ্চ আদালতে যাবার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

নিউজএক্সপ্রেসবিডি