গোপাল নগরে কলস ভর্তি গুপ্তধন পাওয়া গেছে

gupta1অলিউর রহমান ফিরোজ: মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার গোপালনগর গ্রামের সুরুজ মিয়ার বাড়ীতে কলস ভর্তি গুপ্তধন পাওয়া গেছে। গত ১১ অক্টোবর সুরুজ মিয়ার বাড়ীতে বিল্ডিং উঠানোর জন্য রাজমিস্ত্রী নিয়ে মাটি খুড়তে গেলে হঠাৎ কোদালের কোপে কলস ভর্তি আগের আমলের পুরনো পয়সা পাওয়া যায়। কেউ কেউ এগুলো রূপোর পয়সা বলে অভিহিত করেন। কেউ কেউ গুপ্তধন বলে জানান। খবর পেয়ে হাতিমারা ফাঁিড়র এ,এস,আই মনির হোসেন ঘটনাস্থলে আসলে তা লুকানোর চেষ্টা করেন।


পরে খবর পেয়ে ২ নং ওয়ার্ডের কমিশনার তাহের আসলে বাড়ীর মালিক বারোটি পয়সা পুলিশকে দেয়। তবে ঐতিহ্যবাহী এবং অতি পুরনো এ পয়সা গুলো তারা সরকারী সংশ্লিষ্ট প্রতœতত্ত্ব বিভাগে জমা না দিয়ে তাহের কমিশনারের কাছে জমা রেখে গেছেন। বিষয়টি রহস্যজনক। গুপ্তধনের খবর মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়লে অনেকই কৌতুহল হয়ে সুরুজ মিয়ার বাড়ীতে গুপ্তধন দেখতে যান। এলাকায় গুপ্তধনের খবরে বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। প্রতœতত্ত্ব বিষয়ের যে কোন সম্পদ তা রাষ্ট্রীয় সম্পদ বলে বিবেচিত হবে। যে এলাকায় পয়সা গুলো পাওয়া গেছে তা হিন্দু অধ্যুাষিত এলাকা বলে পরিচিত। এখানে আরো পয়সা ভর্তি কলস পাওয়াও অমূলক নয়।

তাই সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে গুত্বের সহিত বিষয়টি নিতে হবে। উদ্ধার করতে হবে এসব প্রতœতত্ত্বের আদি নিদর্শন। এদিকে খবর পেয়ে তাহের কমিশনারের বাড়ীতে হাজির হলে তিনি প্রতিবেদককে বারোটি পয়সা দেখান। রাষ্ট্রীয় সম্পদ কেন আপনার বাড়ীতে রেখে দিয়েছেন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, মিরকাদিম পৌর মেয়রের সাথে দেখা করে তিনি এগুলো প্রতœতত্ত্ব বিভাগে জমা দিবেন বলে জানিয়েছেন।
gupta1

gupta2