ক্ষুরের পোঁচে কৃষকের ভুড়ি বের!

aaaMunshigonjমুন্সীগঞ্জে বিদেশ পাঠানোর পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে একদল যুবকের ধারালো ক্ষুরের এলোপাতাড়ি আঘাতে মো. সোবহান (৫০) নামে এক কৃষকের পেটের ভুড়ি বেরিয়ে গেছে। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার চরাঞ্চল আধারা ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে, কৃষকের পেটের ভুড়ি বেরিয়ে যাওয়ার ঘটনায় বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী ২ যুবককে আটকে গণপিটুনি দিয়েছে। পরে তাদের পুলিশের হাতে সোপর্দ করে গ্রামবাসী। দৌড়ে পালানোরকালে আরিফসহ ২ যুবককে আটক করে গ্রারমবাসী।


সদর থানার সেকেন্ড অফিসার সুলতান উদ্দিন জানান, আধারা ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের কৃষক সোবহানের ছেলে মো. ফারুক একজন আদম ব্যবসায়ী। সে রাজধানীর উত্তরায় বসবাস করেন। যুবক আরিফের কাছ থেকে বিদেশ পাঠানোর কথা বলে কয়েক লাখ টাকা নেন কৃষকের ছেলে ফারুক। ঈদ উপলক্ষ্যে রাজধানীর উত্তরা থেকে পাওনাদার যুবক আরিফ নিজ গ্রামের বাড়ি আধারা ইউনিয়নের দেওয়ানকান্দি গ্রামের বাড়িতে আসেন। ঈদ আনন্দে সামিল হতে একই উপজেলার একই ইউনিয়নের সৈয়দুপর গ্রামের বাড়িতে আসেন উত্তরার ব্যবসায়ী ফারুক।

ঈদের পর দিন বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে পাওনাদার আরিফ ও তার সঙ্গীয় ৪-৫ জন যুবক সৈয়দপুর গ্রামে কৃষক সোবহানের বাড়িতে যায়। সেখানে পাওনা টাকা চাওয়া নিয়ে ফারুক ও আরিফের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হলে এক পর্যায়ে পাওনাদার যুবকরা ধারালো ক্ষুর দিয়ে কৃষকের পেট বরাবর এলোপাতাড়ি পোঁচায়।

ঢাকা নিউজ এজেন্সি
============

মুন্সীগঞ্জে ছুরিকাঘাতে কৃষক আহত

বিদেশ যাওয়ার জন্য দেওয়া টাকা ফেরত চাওয়া নিয়ে বাকবিতণ্ডার জের ধরে মুন্সীগঞ্জে একদল যুবকের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মো. সোবহান (৫০) নামে এক কৃষক ছুরিকাহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলার আধারা ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত কৃষককে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে মুন্সীগঞ্জ হাসপাতালে ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


এদিকে, এ ঘটনায় গ্রামবাসী ওই যুবকদের দুইজনকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সুলতান উদ্দিন বাংলানিউজকে জানান, সৈয়দপুর গ্রামের কৃষক সোবহানের ছেলে মো. ফারুক একজন আদম ব্যবসায়ী। তিনি রাজধানী ঢাকার উত্তরায় বসবাস করেন। কিছুদিন আগে ফারুক বিদেশ পাঠানোর কথা বলে আরিফ নামে এক যুবকের তার কাছ থেকে কয়েক লাখ টাকা নেন। কিন্তু আরিফকে বিদেশ পাঠানোর নামে হয়রানি করছিলেন ফারুক।

‌ঈদে পাওনাদার যুবক আরিফ নিজ গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার চরাঞ্চল আধারা ইউনিয়নের দেওয়ানকান্দি গ্রামের বাড়িতে আসেন। অপরদিকে একই ইউনিয়নের সৈয়দুপর গ্রামের বাড়িতে আসেন আদম ব্যবসায়ী ফারুক।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পাওনাদার আরিফ ৪/৫ সঙ্গী নিয়ে সৈয়দপুর গ্রামে কৃষক সোবহানের বাড়িতে যায়। সেখানে পাওনা টাকা চাওয়া নিয়ে ফারুক ও আরিফের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে পাওনাদার যুবকরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ফারুকের বাবাকে ছ‍ুরিকাঘাত করে।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ওই যুবকদের ধাওয়া করে দুইজনকে আটক করে গণপিটুনি দেয়। পরে তাদের পুলিশের হাতে সোপর্দ করে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর