দালালপাড়ায় গণপিটুনিতে নিহত ১

মুন্সীগঞ্জে ডাকাতি করে পালানোর সময় গণপিটুনিতে শাহাবুদ্দিন (৪৫) নামে এক ডাকাত নিহত হয়েছে। এছাড়া ডাকাতদের হামলায় আরো ২ জন আহত হয়েছে। ডাকাতির সঙ্গে জড়িত সন্দেহে রুমান সিকদার (৩৫) নামে এক যুবককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। নিহত ডাকাত সাহাবুদ্দিন নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার সমপাড়া গ্রামের নাজিমউদ্দিনের ছেলে।

শুক্রবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে সদর উপজেলার রামপাল ইউনিয়নের দালালপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

রামপাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো. তাহের জানান, শুক্রবার গভীর রাতে দালালপাড়া গ্রামের আমজাদ দালালের ভাড়াটিয়া হেকমত আলী মাস্টারের ঘরে প্রবেশ করে একদল ডাকাত। তারা ঘরে ঢুকে বাড়ির লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ ১লাখ টাকা, ৫ ভরি সোনার গহনা ও ৩টি মোবাইল সেট লুটে নেয়। তারা পালিয়ে যাবার সময় আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। এ সময় ডাকাতদের সঙ্গে বাড়ির লোকজনের ধস্তাধস্তি হলে নেকমত মাস্টার (৪৫) ও মুক্তার দালাল (৩৫)-কে কুপিয়ে জখম করে ডাকাতদল। এ সময় অন্য ডাকাতরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও শাহাবুদ্দিন নামে এক ডাকাতকে আটক করতে সক্ষম হয় এলাকাবাসী। পরে গ্রামবাসী তাকে গণপিটুনি দিয়ে রাত সোয়া ৩টার দিকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

এ সময় আহত ডাকাতকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে আনার পর সে মারা যায়। পরে রামপাল সিকদার বাড়ি থেকে পুলিশ রুমান নামে এক যুবককে আটক করে।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর

====================

মুন্সীগঞ্জে গণপিটুনিতে ডাকাত নিহত

মুন্সীগঞ্জ সদরের রামপাল ইউনিয়নের দালালপাড়া এলাকায় ডাকাতি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে শাহাবুদ্দিন(৩০) নামে এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। শুক্রবার দিনগত রাত ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় অভিযান চালিয়ে নাগর (৪৫), রতন (৪০) ও রোমান (৩৫) নামে ৩ ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ। এছাড়া ডাকাতদের হামলায় রামপাল বিদ্যালয়ের শিক্ষক ইছহাক ও তার স্ত্রী গুরুতর আহত হওয়ায় তাদের মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহীদুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, রাতে একদল ডাকাত সদর উপজেলার দালালপাড়া গ্রামে এছাহাক নামে এক শিক্ষকের বাড়িতে হানা দেয়। ডাকাতরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এছাহাককে রক্তাক্ত জখম করে টাকা ও অন্য মালামাল নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছিল।

এ সময় বাড়ির লোকজনের চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে শাহাবুদ্দিন নামে এক ডাকাতকে আটক করে গণপিটুনি দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ আহতবস্থায় তাকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে ভোর ৪টার দিকে শাহাবুদ্দিন মারা যান।

এদিকে, পুলিশের অপর একটি টিম দালালপাড়া ও আশপাশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে নাগর, রতন ও রোমান নামে ৩ ডাকাততে আটক করেছে।

হাতিমাড়া পুলিশ ফাড়িঁর সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মনিরুজ্জামান বাংলানিউজকে জানান, ডাকাতি হওয়া নগদ সাড়ে ৯ হাজার টাকাসহ বেশ কিছু মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ডাকাত শাহাবুদ্দিন রূপগঞ্জের মৃত নাজিমউদ্দিনের ছেলে বলে জানা গেছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর